শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের (এসএলসি) বিবৃতিতে বলা হয়, ২৩ বছর বয়সী এই স্পিনার ম্যানেজমেন্টকে নিজের ‘অসুস্থতা’ জানানোর পর তাঁকে কোভিড পরীক্ষা করানো হয়। পজিটিভ হওয়ায় তাঁকে দল থেকে আলাদা করা হয়েছে। এসএলসির বিবৃতিতে বলা হয়, ‘জয়াবিক্রমাকে তাৎক্ষণিকভাবে দল থেকে আলাদা করা হয়েছে। একটি কক্ষে পাঁচ দিন তাঁকে আইসোলেশনে থাকতে হবে।’

জয়াবিক্রমা কোভিড পজিটিভ হওয়ার পর শ্রীলঙ্কা দলের বাকি সদস্যদের র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন পরীক্ষা করানো হয়। সবার পরীক্ষার ফলই নেগেটিভ এসেছে। গলে প্রথম টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ১০ উইকেটে হেরেছে অস্ট্রেলিয়া। সিরিজে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টায় দ্বিতীয় টেস্টে জয়াবিক্রমাকে খেলাতে চেয়েছিল লঙ্কান টিম ম্যানেজমেন্ট।

গলে স্বাগতিকদের তুলনায় সফরকারি দলের স্পিনাররা প্রথম টেস্টে বেশি ভালো করেছেন। লঙ্কান স্পিনার লাসিথ এম্বুলদেনিয়া ভুগেছেন সবচেয়ে বেশি। মাত্র ১৫ ওভার বল করে উইকেটশূন্য থাকেন। অস্ট্রেলিয়ার স্পিনাররা স্বাগতিকদের তুলনায় বেশি বাঁক পেয়েছেন উইকেট থেকে।

এম্বুলদেনিয়ার জায়গাতেই ফেরার কথা ছিল জয়াবিক্রমার। কিন্তু কোভিড পজিটিভ হওয়ায় এখন শ্রীলঙ্কা দলে বাঁহাতি স্পিনার বলতে শুধু এম্বুলদেনিয়াই আছেন। অবশ্য ১৯ বছর বয়সী স্পিন অলরাউন্ডার দুনিথ ওয়েল্লালাগে আছেন, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে ৫ ম্যাচে ৯ উইকেট নিয়ে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি হয়েছেন।

অস্ট্রেলিয়া দলের এবারের শ্রীলঙ্কা সফরে দ্বিতীয় কোভিড পজিটিভ খেলোয়াড় হলেন জয়াবিক্রমা। এর আগে কোভিড পজিটিভ হয়ে প্রথম টেস্টের মাঝপথে ছিটকে পড়েন লঙ্কান পেস অলরাউন্ডার অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস। লঙ্কান ম্যানেজমেন্ট জানিয়েছে, সুস্থ হয়ে উঠলে তাঁকে দ্বিতীয় টেস্টে খেলানো হতে পারে।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন