default-image

করোনা তাহলে শচীন টেন্ডুলকারকেও ধরে ফেলল! ভারতের ব্যাটিং কিংবদন্তি কিছুক্ষণ আগে টুইটে নিজেই নিশ্চিত করেছেন, করোনা পজিটিভ হয়েছেন তিনি। তাঁর শরীরে মৃদু উপসর্গ আছে বলে জানিয়েছে ভারতের সংবাদমাধ্যম। ৪৭ বছর বয়সী টেন্ডুলকার টুইটে জানিয়েছেন, তিনি এই মুহূর্তে নিজ বাড়িতে কোয়ারেন্টিনে আছেন।

কদিন আগেই পাকিস্তানের কিংবদন্তি অধিনায়ক ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। করোনায় আক্রান্ত শরীরে এক বৈঠকে যোগ দিয়ে অবশ্য বিতর্কেও জড়িয়েছেন ইমরান। এর মধ্যে ভারতের আরেক কিংবদন্তির করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর এল।

বিজ্ঞাপন

করোনাকে ঘরের বাইরে রাখতে টেন্ডুলকারের চেষ্টার কমতি ছিল না। কিন্তু এ যে অদৃশ্য এক শত্রুর বিপক্ষে লড়াই, কখন এক মুহূর্তের অসাবধানতায় ভাইরাসটা শরীরে ঢুকে যায়, তা তো আর বলা যায় না! টেন্ডুলকারের ক্ষেত্রেও তেমনটাই হলো। ভারতীয় কিংবদন্তি টুইটে লিখেছেন, ‘কোভিডকে দূরে সরিয়ে রাখার জন্য বারবার পরীক্ষা করিয়েছি, সব ধরনের সতর্কতামূলক ব্যবস্থা মেনে চলেছি। যা-ই হোক, আজ মৃদু কিছু উপসর্গের পর আমার পরীক্ষার ফল পজিটিভ এসেছে।’

তবে স্ত্রী-সন্তানসহ অন্যদের নিয়ে এই মুহূর্তে দুশ্চিন্তা করতে হচ্ছে না দুই দশকের বেশি সময় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট রাঙিয়ে ২০১৩ সালে অবসরে যাওয়া টেন্ডুলকারকে, ‘ঘরের অন্য সবাই টেস্টে নেগেটিভ হয়েছে।’

করোনার মধ্যে অবশ্য টেন্ডুলকারের ব্যস্ততার কমতি ছিল না। কদিন আগে ভারতের রায়পুরে হয়ে যাওয়া রোড সেফটি ওয়ার্ল্ড সিরিজ বা লিজেন্ডস ক্রিকেটে খেলেছেন তিনি। ভারত, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ইংল্যান্ড—এই ছয় দেশের সাবেক ক্রিকেটারদের নিয়ে আয়োজিত টুর্নামেন্টে ফাইনালে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে শিরোপা জেতা ভারতীয় দলের নেতৃত্ব দিয়েছেন টেন্ডুলকারই।

default-image

তখন অবশ্য প্রতিদিনই করোনার টেস্ট করাতে হয়েছে তাঁদের। এর মধ্যে টেস্টের সময় মজা করে স্বাস্থ্যকর্মীকে ভয় দেখিয়ে টেন্ডুলকারের করা ভিডিও বেশ ভাইরালও হয়েছে।

কিন্তু সেই সিরিজের বেশ কিছুদিন পর এসে করোনা ধরে ফেলল টেন্ডুলকারকে। গত কিছুদিনে উপমহাদেশে করোনায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা জ্যামিতিক হারে বাড়ছে। কি ভারত, কি বাংলাদেশ, কি পাকিস্তান...সবখানেই মৃত্যু ও আক্রান্ত হওয়ার হার বাড়ছেই! টেন্ডুলকার ভারতের যে রাজ্যের সন্তান, সেই মহারাষ্ট্রে গতকাল এক দিনে ৩৬ হাজার মানুষ করোনা পজিটিভ হয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

এই ৩৬ হাজারের মধ্যে একজন হয়ে গেলেন মহারাষ্ট্রের সবচেয়ে বিখ্যাত সন্তান। করোনায় আক্রান্ত হওয়া যখন ঠেকানো যায়নি, এখন আর কী করবেন! টেন্ডুলকার প্রয়োজনীয় সব স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাসায়ই আছেন। টুইটারে তা-ই জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০০ সেঞ্চুরি করা কিংবদন্তি, ‘আমি ঘরে কোয়ারেন্টিনে আছি। ডাক্তারদের পরামর্শ মেনে সব প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছি।’

default-image

করোনার মধ্যে প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে প্রাণান্ত পরিশ্রম করে যাওয়া ডাক্তার ও অন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের ধন্যবাদও জানিয়েছেন টেন্ডুলকার, ‘আমাকে এবং দেশজুড়ে আরও অনেক মানুষকে প্রতিমুহূর্তে সাহায্য করে যাওয়ার সব স্বাস্থ্যকর্মীকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’ সবশেষে সবার প্রতি তাঁর অনুরোধ, ‘নিজের যত্ন নিন।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন