বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

মুম্বাইয়ের বিপক্ষে এ হারের পর একাদশ নিয়ে নতুন করে ভাবতে হচ্ছে কলকাতাকে। আজ রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে ম্যাচে কলকাতার একাদশে পরিবর্তন আসতে পারে বলে মনে করছেন অনেকেই। তবে সেই পরিবর্তন আনার আগে অধিনায়ক মরগানকে ভাবতে হচ্ছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে প্রায় নিখুঁত খেলে জেতা ম্যাচটির কথা। প্রথমে ব্যাটি করে সেই ম্যাচে ৬ উইকেটে ১৮৭ রান করেছিল কলকাতা। এরপর হায়দরাবাদকে ১৭৭ রানে আটকে দিয়ে ম্যাচটি তারা জিতেছিল ১০ রানে।

নিজেদের ২ ম্যাচের একটি জেতা আর একটি হারা কলকাতা আজ মুখোমুখি হচ্ছে এবারের আইপিএলে এখন পর্যন্ত একমাত্র অপরাজিত দল বেঙ্গালুরুর। পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থাকা কোহলির এই দলের বিপক্ষে আজ কেমন হতে পারে কলকাতার একাদশ তা একটু বুঝে নেওয়ার চেষ্টা করা যাক—

default-image

১. শুভমন গিল

মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের বিপক্ষে নিতীশ রানার সঙ্গে ইনিংস ওপেন করতে নেমে ৩৩ রানের ভালো একটি ইনিংস খেলেছেন ভারতের টেস্ট ওপেনার। প্রথম ম্যাচে হায়দরাবাদের বিপক্ষে জয়ে তাঁর অবদান ছিল ১৫ রানের। আইপিএল অনুসরণ করা ক্রিকেটপ্রেমী আর ক্রিকেট পণ্ডিতদের বেশির ভাগেরই ধারণা তৃতীয় ম্যাচে আরও ভালো করতে পারেন গিল। তা ছাড়া রানার সঙ্গে তাঁর ওপেনিং জুটিটা জমেও উঠতে শুরু করেছে। সেদিক বিবেচনা করে মরগান হয়তো এখানে কোনো পরিবর্তন আনার কথা ভাববেন না।

২. নিতীশ রানা

এখন পর্যন্ত এবারের আইপিএলে কলকাতার সেরা ব্যাটসম্যান নিতীশ রানা। হায়দরাবাদের বিপক্ষে খেলেছেন ম্যাচ জেতানো ৮০ রানের ইনিংস। পরের ম্যাচটা কলকাতা জিততে না পারলেও রানা করেছেন দলীয় সর্বোচ্চ ৫৭ রান। এমন একজন ওপেনার পেয়ে কলকাতার অধিনায়ক মহাখুশি। বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে ভালো শুরুর আশায় তিনি রানার ব্যাটের দিকেই তাকিয়ে থাকবেন। অনেকেরই ধারণা রানা ঠিকই এই বিশ্বাসের প্রতিদান দেবেন।

default-image

৩. রাহুল ত্রিপাঠি

দুই ম্যাচে তাঁর রান ৫৫ ও ৫। হায়দরাবাদের বিপক্ষে ৫৫ রান করে এবারের আইপিএলটা দুর্দান্তভাবে শুরু করলেও পরের ম্যাচে দলের সবচেয়ে বেশি প্রয়োজনে জ্বলে উঠতে পারেননি রাহুল ত্রিপাঠি। তবে কলকাতার ব্যাটিং লাইনআপকে স্থিতি দিতে তাঁর ওপর এখনো নির্ভর করছেন অধিনায়ক মরগান। তাই তো তিন নম্বরে ত্রিপাঠির বিকল্প এখনো অন্য কাউকে ভাবছেন না তিনি। কে জানে, হয়তো আজ অধিনায়কের সেই বিশ্বাসের মূল্য দিতে পারবেন ত্রিপাঠি।

৪. এউইন মরগান

ব্যাট হাতে এখনো জ্বলে উঠতে পারেননি ইংল্যান্ডের অধিনায়ক। তবে দলকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন দারুণভাবে। তাঁর অসাধারণ ট্যাকটিকসে কলকাতা এবারের আইপিএলে ভালো কিছু করবে বলেই বিশ্বাস করেন অনেকে। আর ব্যাট হাতে জ্বলে ওঠা? শুধু একটি ভালো ইনিংসের অপেক্ষা আর কী! এখনো তাই মরগানকে অধিনায়কের আসন থেকে সরানোর কোনো ইচ্ছা কলকাতার টিম ম্যানেজমেন্টের নেই।

default-image

৫. আন্দ্রে রাসেল

বড় বড় ছক্কা মারার সামর্থ্য রাখা ওয়েস্ট ইন্ডিজের অলরাউন্ডার এবারের আইপিএলে এখনো ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে পারেননি। তবে মুম্বাইয়ের কাছে হেরে যাওয়া ম্যাচে রোহিত শর্মা, কুইন্টন ডি কক সমৃদ্ধ ব্যাটিং লাইনআপকে ১৫২ রানে আটকে রাখতে বল হাতে বড় ভূমিকা রেখেছেন। ১৫ রানে ৫ উইকেটে—আইপিএলে নিজের সেরা বোলিংটাই করেছেন সেই ম্যাচে। কলকাতা নাইট রাইডার্সের টুর্নামেন্ট-পরিকল্পনায় এখনো তিনি বড় অংশ হয়েই আছেন।

৬. দিনেশ কার্তিক

ভারতের উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান দিনেশ কার্তিক নিজের নামের প্রতি সুবিচার এবারের আইপিএলে এখনো করতে পারেননি। দলের প্রথম ম্যাচে হায়দরাবাদের বিপক্ষে অবশ্য ভালোই করেছেন, ছয় নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ৯ বলে ২২ রান করে ছিলেন অপরাজিত। দ্বিতীয় ম্যাচে অবশ্য ব্যাট হাতে একেবারেই ব্যর্থ বড় শট খেলার সামর্থ্য রাখা কার্তিক। তবে যেকোনো সময়েই তাঁর ব্যাটে ছুটতে পারে রানের ফোয়ারা। এ ছাড়া দলের লিডারশিপের গুরুত্বপূর্ণ একজন সদস্যও তিনি। তাই এত দ্রুতই তাঁর ওপর আস্থা হারাচ্ছে না কলকাতা।

default-image

৭. সাকিব আল হাসান

দুই ম্যাচে দুই উইকেট নিয়েছেন বাংলাদেশের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তবে ব্যাট হাতে এখনো নিজের সেরাটার কাছাকাছিও যেতে পারেননি। এমনকি বল হাতেও তাঁর কাছ থেকে কলকাতার অধিনায়ক মরগান, কর্মকর্তা আর সমর্থকদের প্রত্যাশা এর চেয়ে অনেক বেশি। টুর্নামেন্ট শুরুর আগেই মরগান বলেছিলেন, সাকিবের ওপর একটু বেশিই ভরসা করতে চান তিনি। সাকিব সেটা মেটাতে পারবেন বলেও আস্থা আছে তাঁর। সমর্থকদের সেই প্রত্যাশা মেটানো আর অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান দেওয়ার অপেক্ষায় আছেন সাকিব। আর মরগান আছেন সাকিবের সেরাটা দেখার অপেক্ষায়। তাই হয়তো এখনই সাকিবের বিকল্প অন্য কাউকে ভাবছেন না মরগান।

৮. প্যাট কামিন্স

বল হাতে ভালোই করেছেন প্যাট কামিন্স। ২ ম্যাচে নিয়েছেন ৩ উইকেট। অস্ট্রেলিয়ার ফাস্ট বোলার অতীতে কলকাতা ও জাতীয় দলের হয়ে অনেকবারই দেখিয়েছেন যে ব্যাট হাতেও ছোট ছোট ঝড় উপহার দিতে পারেন। কলকাতা কামিন্সের কাছ থেকে তাঁর ভালো বোলিংয়ের সঙ্গে তেমনই দু-একটি ঝড় দেখার অপেক্ষায় আছে।

default-image

৯. বরুণ চক্রবর্তী

মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের বিপক্ষে এবারের আইপিএলে প্রথম উইকেট পেয়েছেন বরুণ চক্রবর্তী। সেই ম্যাচে রান খরচও কম করেছেন কলকাতার স্পিনার। ৪ ওভার বোলিং করে দিয়েছেন ২৭ রান, ইকনোমি ৬.৭৫। আজ বেঙ্গালুরুর রান আটকে রাখতেও তাঁর ওপর অনেকাংশেই নির্ভর করবেন কলকাতার অধিনায়ক মরগান। একই সঙ্গে আশা করবেন এক বা দুটি উইকেটও যেন তুলে নিতে পারেন বরুণ।

১০. কুলদীপ যাদব/হরভজন সিং

মরগানের দলে বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে একমাত্র যে পরিবর্তনটি আসতে পারে তা এখানেই। মরগান হয়তো এ ম্যাচে অভিজ্ঞ অফ স্পিনার হরভজন সিংয়ের পরিবর্তে খেলাতে পারেন বাঁহাতি স্পিনার কুলদীপ যাদবকে। ভারতের সাবেক স্পিনার হরভজন কলকাতার দুটি ম্যাচেই খেলেছেন। দুই ম্যাচ মিলিয়ে ৩ ওভার বোলিং করে কোনো উইকেট পাননি, দিয়েছেন ২৫ রান। যার মানে হরভজনকে নিয়ে যে পরিকল্পনা কলকাতার ছিল তা পূরণ হচ্ছে না। এ কারণেই তাঁর জায়গায় কুলদীপ খেলতে পারেন কোহলিদের বিপক্ষে।

১১. প্রসিধ কৃষ্ণ

ভারতের পেসার প্রসিধ কৃষ্ণের দুই ম্যাচে ইকনোমি ছিল ৮.৮০ ও ১০.৫০। প্রথম ম্যাচে ২ উইকেটের পর দ্বিতীয় ম্যাচে নিয়েছেন একটি উইকেট। সব মিলিয়ে ছন্দে থাকা প্রসিধকে দল থেকে বাদ দেওয়ার কোনো কারণ থাকতে পারে না। মরগান হয়তো তাঁর কাছে এটুকু চাইতে পারেন যে রান খরচটা আরেকটু কমিয়ে উইকেট পাওয়ার পরিমাণটা বাড়ুক!

কলকাতার সম্ভাব্য একাদশ: শুবমান গিল, নিতীশ রানা, রাহুল ত্রিপাঠি, এউইন মরগান (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান, দিনেশ কার্তিক (উইকেটকিপার), আন্দ্রে রাসেল, প্যাট কামিন্স, বরুণ চক্রবর্তী, হরভজন সিং/কুলদীপ যাদব, প্রসিধ কৃষ্ণ।

মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন