বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

এ মৌসুমের আগে কলকাতা নাইট রাইডার্সের ব্যাটিং লাইনআপ নিয়ে বেশ আলোচনা হয়েছে। গত মৌসুমের সেরা পারফরমার আন্দ্রে রাসেলকে লাইনআপে এগিয়ে এনে তিনে নামানো হবে—এমন আলোচনাও শোনা গেছে। কিন্তু টুর্নামেন্ট শুরু হওয়ার পর এমন কিছুই দেখা যায়নি। বরং সেই বহু পুরোনো টোটকাতেই পড়ে আছে তারা।

ওপেনিংয়ে নামছেন সুনীল নারাইন। এউইন মরগান ও রাসেলের মতো ব্যাটসম্যান থাকতেও তাদের বসিয়ে রেখে নামছেন কার্তিক। আর রাহুল ত্রিপাতির মতো টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানকে খেলানো হচ্ছে লোয়ার মিডল অর্ডারে।

কাল দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে পাঁচে নেমেছেন কার্তিক। ২২৯ রানের লক্ষ্যে নামা অধিনায়ক ৮ বলে ৬ রান করে ফিরেছেন। অথচ ছয়ে ও আটে নামা মরগান ও রাহুল ত্রিপাতির দুটো ঝোড়ো ইনিংস ম্যাচটাকে শেষ ওভার পর্যন্ত টেনে নিয়েছে। ১৮ বলে ৪৪ রান করেছেন মরগান। ত্রিপাতি ১৬ বলে ৩৬ রান করেছেন।

ত্রিপাতির মতো এক ব্যাটসম্যানের পরে নামা পছন্দ হচ্ছে না কলকাতাকে দুটি আইপিএল জেতানো গম্ভীরের, ‘রাহুল ত্রিপাতিকে ওপরে নামাতে হবে, দিনেশ কার্তিক খেলবে ছয়ে। সে মরগানের আগে নামবে না, রাসেলের আগেও না। সুনীল নারাইনের আট বা নয়ে নেমে ব্যাট করা উচিত। মরগান চারে ব্যাট করবে, রাসেল নামবে পাঁচে এবং এরপর নামবে দিনেশ কার্তিক।’

ইএসপিএন ক্রিকইনফোর সঙ্গে কথোপকথনে কলকাতার আরও অনেক ভুল দেখিয়ে দিয়েছেন গম্ভীর। কাল ১৯তম ওভারে বল করেছেন স্পিনার বরুণ চক্রবর্তী। আগের তিন ওভারে ২৯ রান দেওয়া এই স্পিনার ২০ রান দিয়েছেন সে ওভারে।

১৮ রানে হারা ম্যাচে এটাই ব্যবধান গড়ে দিয়েছে, এমনই মনে হয়েছে গম্ভীরের, ‘১৮, ১৯ ও ২০ ওভারে সেরা বোলারদের বল করাতে হয়, কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে সেটা হয়নি। প্যাট কামিন্সের করা উচিত। আর যদি কোনো স্পিনারকে বল দিতেই হয়, সুনীল নারাইন। এমনকি আগের ম্যাচে শিবম মাভি খুব ভালো করেছে এবং আন্দ্রে রাসেলও ভালো করেছে। আপনার সেরা বোলারদের বল দিতে হয়। বরুণ প্রথম কয়েক ওভারে ভালো করেছে, কিন্তু ১৯তম ওভারে এক তরুণ স্পিনারের ভালো করার আশা করতে পারেন না, বিশেষ করে শারজাতে। সম্ভবত হিসেবে ঝামেলা হয়েছিল।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন