কাল সকালে এ দুজনের কাছ থেকে বড় কিছু আশা করছে বাংলাদেশ।
কাল সকালে এ দুজনের কাছ থেকে বড় কিছু আশা করছে বাংলাদেশ। ছবি: এএফপি

নাজমুল হোসেন ও মুমিনুল হকের সেঞ্চুরিতে ৪ উইকেটে ৪৭৪ রান নিয়ে আজ পাল্লেকেলে টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে বাংলাদেশ দল। আলোক স্বল্পতায় এক ঘণ্টা আগে খেলা শেষ না হলে দলের রান এ দিনই ৫০০ ছাড়াতে পারত। কাল সকালে সেদিকেই চোখ থাকবে দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের। আজ দিন শেষে কোচ রাসেল ডমিঙ্গোও বলে দিয়েছেন, কাল অন্তত প্রথম সেশনটা ব্যাটিং করতে চায় বাংলাদেশ দল। উদ্দেশ্য, রানটাকে ৫০০ ছাড়িয়ে যতটা সম্ভব স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার নাগালের বাইরে নিয়ে যাওয়া।

পাল্লেকেলেতে আজ দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে এক অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে ডমিঙ্গো বলেছেন, ‘আমাদের কাল সকালে দ্রুত কিছু রান করতে হবে। আমরা চাই ৫২০-এর আশপাশে রান করে ওদের ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে চাপে ফেলতে।’

বিজ্ঞাপন
default-image

পাল্লেকেলের ব্যাটিং-সহায়ক উইকেটে বাকি তিন দিনে শ্রীলঙ্কার ২০ উইকেট নেওয়া অবশ্য চাট্টিখানি কথা নয়। বাংলাদেশ দলের বোলিং আক্রমণ আবার তিন পেসারে সাজানো। তাতে খুব বেশি আশাবাদী হওয়া যাচ্ছে না কারণ, টেস্টের প্রথম দুই দিনে খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি লঙ্কান পেসাররাই। প্রথম দিনের প্রথম ঘণ্টা বাদে খুব বেশি সুইং পাননি পেসাররা। পুরোনো বলেও রিভার্স সুইং দেখা যায়নি তেমন। স্পিনাররা যা একটু সুবিধা পাচ্ছেন, সেটিও পেসারদের বুটের ক্ষত থেকে। ধনঞ্জয়া ডি সিলভার অফ স্পিনে সে রকম টার্ন থেকেই কট বিহাইন্ড হন সেঞ্চুরিয়ান মুমিনুল। একই জায়গা থেকে আরেক সেঞ্চুরিয়ান নাজমুলের ব্যাটের কোনা ছুঁয়ে বল গেছে স্লিপে।

অবশ্য উইকেটের এই অবস্থা দেখেই শ্রীলঙ্কাকে দুবার অলআউট করার আশা দেখছেন প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। দলে তিন পেসার থাকলেও মূল কাজটা যে সেই স্পিনারদেরই করতে হবে, বুঝিয়ে দিয়েছেন সেটা, ‘উইকেট খুবই ভালো আচরণ করছে। তবে উইকেটের দুই প্রান্তেই ক্ষত তৈরি হচ্ছে। আশা করি এটা স্পিনারদের ম্যাচে আনবে। আর বড় রানের পর ব্যাটিং করাটা সব সময়ই চাপের। ওদের ব্যাটসম্যানরা ক্লান্ত থাকবে, রানের চাপ থাকবে তাদের ওপর, বোলারদের দুই-একটি ভালো স্পেল, ওদের দুই-একটি ভুল—এসব মিলিয়েই আমাদের হয়তো ভালো সুযোগ থাকবে ২০ উইকেট নেওয়ার। কাজটা কঠিন, তবে আমরা আগামী দুই দিন সব চেষ্টাই করব।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন