default-image

রসুলও উচ্ছ্বসিত দলের সাফল্যে অবদান রাখতে পেরে। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের একাডেমি মাঠে সেদিন প্রথম আলোকে বলছিলেন, ‘আমার পারফরম্যান্স ভালোই হচ্ছে, শেখ জামালও ভালো করছে। প্রথম ম্যাচ থেকেই আমরা ভালো খেলছি এবং সেটা ধরেও রেখেছি। ভালো লাগছে যে দলের জয়ে আমিও অবদান রাখতে পারছি।’

প্রিমিয়ার লিগে এটি রসুলের চতুর্থ মৌসুম। এর আগে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স ও লেজেন্ডস অব রূপগঞ্জের হয়ে খেলেছিলেন জম্মু ও কাশ্মীরের এই ক্রিকেটার। বাংলাদেশ বলতে গেলে রসুলের ‘দ্বিতীয় বাড়ি’। বাংলাদেশ পছন্দ হওয়ার কারণও আছে। প্রিমিয়ার লিগের উইকেট নাকি তাঁর খুব পছন্দ!

স্থানীয় ক্রিকেটাররা উইকেট নিয়ে বরাবর অভিযোগ করে এলেও রসুলের যুক্তি, ‘আমার অভিজ্ঞতা থেকে এখানকার উইকেট ভালোই মনে হয়েছে। মিরপুরে লো স্কোরিং ম্যাচ হবে। এ পর্যায়ে এসে এটুকু আপনাকে মানিয়ে নিতেই হবে। সব সময় আপনি ব্যাটিং উইকেট পাবেন না। বিকেএসপিতে যেমন একদম ব্যাটিং উইকেট পাচ্ছেন। সব জায়গায় একই উইকেট হলে তো বৈচিত্র্য থাকবে না, আপনি শিখবেনও না।’

আমি যদি অন্য কোনো রাজ্যের হয়ে খেলতাম, তাহলে নিশ্চয়ই আরও বেশি সুযোগ পেতাম
পারভেজ রসুল

রসুল এরপর বলেছেন আরও অবাক করা কথা। ক্রিকেট শিখতেই নাকি ইংল্যান্ডে না খেলে ঢাকায় প্রিমিয়ার লিগ খেলতে আসেন তিনি! কারণ, প্রিমিয়ার লিগে বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের বিপক্ষে ব্যাটিং-বোলিংয়ের সুযোগ পাচ্ছেন।

ঢাকার ক্রিকেটের প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ আবহটাও তাঁর দারুণ পছন্দ, ‘আমার কাউন্টি খেলার অনেক প্রস্তাব আসে। কিন্তু সেখানে এ রকম প্রতিযোগিতা থাকে না যেটা প্রিমিয়ার লিগে থাকে। মাইনর কাউন্টিগুলোতে দেখা যায় ৪০-৫০ বছর বয়সী লোকজনও খেলে। সেখানে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ক্রিকেট হয় না। এখানে প্রতিদ্বন্দ্বিতার আমেজ আছে।’

প্রিমিয়ার লিগে রসুলের পারফরম্যান্স ধারাবাহিক হলেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তিনি নিয়মিত নন। ২০১৪ সালে খেলা একমাত্র ওয়ানডে আর ২০১৭ সালে খেলা একমাত্র টি-টোয়েন্টি ম্যাচেই থেমে আছে তাঁর আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার।

default-image

ঢাকার ক্রিকেটের মতো ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটেও রসুলের পারফরম্যান্স বেশ উজ্জ্বল। তবু কেন সুযোগ মিলছে না? রসুলের দাবি, জম্মু ও কাশ্মীরের ক্রিকেটার হওয়াতেই নাকি পর্যাপ্ত সুযোগ পাচ্ছেন না তিনি।

‘আমি তিনবার দেশের সেরা অলরাউন্ডার হয়েছি। বড় বড় ম্যাচ একা হাতে জিতিয়েছি। গত দুই মৌসুমে প্রায় দেড় শর মতো উইকেট নিয়েছি, রান করেছি ১ হাজার ৮০০–এর মতো। অথচ আমি সুযোগ পাচ্ছি না! আমি যদি অন্য কোনো রাজ্যের হয়ে খেলতাম, তাহলে নিশ্চয়ই আরও বেশি সুযোগ পেতাম’ - আফসোস রাসুলের।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন