শুধুই কি গ্রুপ পর্বের সাধারণ একটি ম্যাচ এটি? তার চেয়েও বোধ হয় বেশি কিছু। তাসমান সাগরের দুই প্রতিবেশীর দ্বৈরথের আরও দিন তিনেক বাকি। অথচ এখনই ম্যাচটা যেভাবে উত্তাপ ছড়াচ্ছে, তাতে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড ম্যাচের রোমাঞ্চের পারদ যে কোথায় উঠবে কে জানে!
এমনিতে ম্যাচটা মোটেই বাঁচা-মরার লড়াই নয়, হারলে বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়ার শঙ্কা নেই কারোরই। বরং গ্রুপ শ্রেষ্ঠত্বই হয়তো ঠিক হয়ে যেতে পারে এই ম্যাচে। তবে হ্যাঁ, এটা হতে পারে বিশ্বকাপের সম্ভাব্য ফাইনালের মহড়াও। এসবের বাইরেও ম্যাচটির একটি আলাদা মাহাত্ম্য আছে। জয়ী দলের হাতে যে চ্যাপেল-হ্যাডলি ট্রফিটাও উঠবে!
অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের ওয়ানডে শ্রেষ্ঠত্ব ঠিক করতে ২০০৪ সাল থেকেই এই পুরস্কার চালু হয়। দুই দলের সর্বশেষ দেখায় অস্ট্রেলিয়া জিতেছিল, এই মুহূর্তে ট্রফিটা তাদেরই হাতে আছে। সেই দেখাও কিন্তু চার বছর আগের বিশ্বকাপে। নাগপুরের সেই ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকে ৭ উইকেটে হারিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। এরপর আর দুই দলের দেখা হয়নি! দুর্দান্ত ফর্মে থাকা কিউই অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককালাম নিজেদের মাঠে (অকল্যান্ডের ইডেন পার্ক) ওই ট্রফিটা নিশ্চয়ই ছিনিয়ে নিতে চাইবেন।
চার বছর আগের বিশ্বকাপের ছয়জন আছেন বর্তমান নিউজিল্যান্ড দলে, অস্ট্রেলিয়া দলে পাঁচজন। অ্যারন ফিঞ্চ বা কোরি অ্যান্ডারসনদের তখন ওয়ানডে-অভিষেকই হয়নি। কিন্তু তাতে করে রোমাঞ্চের আঁচটা গায়ে মাখতে কোনো অসুবিধাই হচ্ছে না তাঁদের। ফিঞ্চ যেমন আগে বলেছিলেন, নিজেদের মাঠে খেলার জন্য চাপটা নিউজিল্যান্ডের ওপরই বেশি থাকবে। কাল অ্যান্ডারসন সেটা উড়িয়ে দিলেন, ‘এসব মনস্তাত্ত্বিক লড়াই। বিশ্বকাপে প্রতিটি ম্যাচই আলাদা একটা চাপ। আমরা তো দর্শকভর্তি ইডেন পার্কের সামনে খেলার ব্যাপারে এখন থেকেই রোমাঞ্চিত। আশা করি দর্শক-সমর্থন ওদের ভড়কে দেবে।’
অ্যান্ডারসন বরং আরেকটি পাল্টা খোঁচা দিলেন ক্যাঙারুর দেশের ক্রিকেট দলকে। এই দুই দলের লড়াইয়ে আগেও কথার ঝাঁজ ছড়ায়। আর স্লেজিংয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার আলাদা ‘সুনাম’ তো আছেই। নিউজিল্যান্ড অলরাউন্ডার সেটাই মনে করিয়ে দিলেন, ‘ওদের স্লেজিং কৌশল এখন সবার জানা। আর এসবে আমরা নিজেদের জড়াই না। মাঠে আমরা এসব থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করি। তবে আমরা ওদের দিক থেকে উত্তপ্ত কিছু কথাবার্তা আশা করছি।’
ফিঞ্চকে যেমন জবাব দিয়েছেন অ্যান্ডারসন, তেমনই ডেভিড ওয়ার্নার তাঁতিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন ম্যাককালামকে। বলছেন, আঁটসাঁট বোলিং করে কিউই অধিনায়ককে আটকে দেওয়া হবে। ইডেন পার্কের ছোট মাঠে কিউই-ক্যাঙারু লড়াইটা তাহলে হতে যাচ্ছে বিস্ফোরক! এএফপি, সিডনি মর্নিং হেরাল্ড।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন