এবার বেশ আরাম করে আইপিএল দেখছেন যুবরাজ সিং। আইপিএলের শুরু থেকেই তো কোনো না কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। ফলে সময়টা হয় ম্যাচ খেলা, নয় তো অনুশীলন অথবা দলের প্লে-অফ ভাগ্য নিয়ে চিন্তা করে পার করতে হতো। এবার আর সেসব দুশ্চিন্তা ঘাড়ে চড়ে বসেনি। সুযোগ কাজে লাগিয়ে বেশ উপভোগ করেছেন প্রতিটি ম্যাচ। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ম্যাচ নিয়ে অথবা ম্যাচের ঘটনা নিয়ে ব্যস্ত থেকেছেন বেশ।

default-image

যুবরাজের এ ব্যস্ততা টুইটারে ভালোই টের পাওয়া গেছে। যখনই কোনো মজার ঘটনা ঘটেছে, এ নিয়ে যুবরাজের কোনো না কোনো মন্তব্য পাওয়া গেছে। ক্যারিয়ারজুড়ে মাঠে ও মাঠের বাইরে সতীর্থ ও প্রতিপক্ষের সঙ্গে রসিকতা করার জন্য বিখ্যাত ছিলেন যুবরাজ। এ সপ্তাহের শুরুতেও যেমনটা করেছিলেন রোহিত শর্মার সঙ্গে। কিন্তু মজা করে দেওয়া সে টুইট মুছে ফেলেছেন যুবরাজ।

default-image

গত শনিবার মুম্বাই ইন্ডিয়ানস ও দিল্লি ক্যাপিটালস মুখোমুখি হয়েছিল। ৩১ অক্টোবরের সে ম্যাচে দিল্লিকে অনায়াসে হারিয়েছে মুম্বাই। ম্যাচ শেষে মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের টুইটার পেজে একটি ছবি পোস্ট করা হয়েছিল। ছবিতে দেখা গেছে, মুম্বাই ইন্ডিয়ানস অধিনায়ক রোহিত শর্মার সঙ্গে খুব জরুরি মুখ করে আলাপ করছেন ঋষভ পন্ত। সে ছবি পোস্ট করে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিখেছিল, ‘পন্ত ও রোহিতের মধ্যে ছক্কার প্রতিযোগিতার অপেক্ষায় আছি এখনো।’

default-image
বিজ্ঞাপন

করোনার সময়টায় রোহিতের উদ্দেশে একটা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছিলেন পন্ত। বলেছিলেন, বড় ছক্কা মারায় রোহিতের সঙ্গে পাল্লা দিতে চান। সেটা আবার হেসেই উড়ে দিয়েছিলেন রোহিত। বলেছিলেন, ‘এখনো এক বছর হয়নি খেলা শুরু করেছে আর আমার সঙ্গে পাল্লা দেবে?’ মুম্বাই ইন্ডিয়ানস সে কথাই মনে করিয়ে দিতে চেয়েছিল। কিন্তু সে টুইটেও রসিকতা করতে গিয়েছিলেন যুবরাজ। রোহিতের স্ত্রী রিতিকা সাজদেহকে ট্যাগ করে জিজ্ঞেস করেছিলেন, ‘নাকি কার গালে কত বেশি চর্বি, সেই প্রতিযোগিতার অপেক্ষা?’

default-image

হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে পড়ায় গত দুই সপ্তাহ মাঠে নামেননি রোহিত। ওদিকে গত কয়েক দিনে ভালো ফর্মে নেই ঋষভ পন্ত। দুজনের মধ্যে ছক্কার প্রতিযোগিতা অন্তত খুব শিগগির হচ্ছে না; বরং দুজনেরই গত কিছুদিনে কিছুটা ওজন বেড়েছে। হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে পড়ায় ফিটনেস নিয়ে কাজ করা হচ্ছে না রোহিতের। ওদিকে ওজন বেড়ে যাওয়ায় অস্ট্রেলিয়া সফরের ভারত দল থেকে ছিটকে পড়ার অবস্থা হয়েছিল পন্তের। তাই দুজনকে নিয়ে আরেকটু খোঁচানোর লোভ সামলাতে পারেননি যুবরাজ। সে টুইটের জবাবে আরেকটা টুইট করেছেন, ‘রোহিত সম্ভবত পন্তকে জিজ্ঞাসা করছে, তোর গাল বেশি মোটা, নাকি আমারটা?’

দুটি টুইটই ভালো সাড়া ফেলেছিল। প্রচুর মন্তব্য ও রিটুইট করা হয়েছিল যুবরাজের সে টুইট দুটিতে। কিন্তু কিছুক্ষণ পরই মুছে ফেলা হয়েছে সে টুইট। হয়তো তাঁর মনে হয়েছে, রসিকতার মাত্রাটা একটু বেশিই হয়েছে।

মন্তব্য পড়ুন 0