default-image

ব্রিসবেনের নীল নির্মেঘ আকাশ মেঘে ঢাকা পড়ে গেছে গত দুদিন আগেই। শঙ্কার কুয়াশা বিন্দু বিন্দু করে জমেছিল বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়ার ম্যাচটি ঘিরে। অবিরত বর্ষণ ধীরে ধীরে সংকুচিত করে দিয়েছে ম্যাচটি মাঠে গড়ানোর সব রকম সম্ভাবনা। আজ সকাল থেকেই নিশ্চয়ই বাংলাদেশের দর্শকদের দৃষ্টি টিভি সেটের দিকে আবদ্ধ।

এরই মধ্যে মাঠে পৌঁছে গেছে বাংলাদেশ দল। তবে আজ হয়তো চিরায়ত বাংলার বর্ষণ দেখে অভ্যস্ত মাশরাফিদের সাজঘরে বসেই উপভোগ করতে হবে অস্ট্রেলীয় ‘বর্ষা’। ব্রিসবেনের আবহাওয়া কর্তৃপক্ষও খুব একটা আশার বাণী শোনাতে পারছে না। বিকেল নাগাদ বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা খানিকটা কমে আসতে পারে বলে জানিয়েছেন তারা। বাতাসের গতিবেগও বেড়ে যাবে সন্ধ্যা নাগাদ। সে ক্ষেত্রে বাতাসের ধাক্কায় খানিকটা মেঘ সরে গিয়ে বৃষ্টি কমে বা থেমে যেতে পারে।
ম্যাচ অফিশিয়ালরা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টা পর্যন্ত অপেক্ষা করার। বাংলাদেশ সময়ে তখন ঘড়ির কাঁটা পৌঁছাবে দুপুর আড়াইটার ঘরে।
সকাল সকাল খানিকটা সম্ভাবনা উঁকি দিয়েছিল অবশ্য। আকাশের চেহারা দেখে অনেকেই আশা করেছিলেন যে মেঘ না কাটুক, বৃষ্টি হয়তো ক্ষান্তি দেবে। তবে খুব বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি সেই আশা। দপ করে জ্বলে ওঠা সেই সম্ভাবনায় জল ঢেলে দিয়েছে স্বয়ং আকাশ। ফক্স স্পোর্টস টুইট করেছে মাঠের ছবি। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, অঝোর ধারায় আবার ভারী বর্ষণ শুরু হয়েছে। এমনটা চলতে থাকলে খেলা শুরু হওয়া কোনোভাবেই সম্ভব নয়।
ওয়ানডেতে দুই ইনিংসে কমপক্ষে ২০-২০ ৪০ ওভার খেলা হতে হয়। আড়াইটায় খেলা গড়ালেও ম্যাচটি হবে। আর ততক্ষণেও খেলা শুরু না হলে পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হবে ম্যাচটি। উল্লিখিত সময়ে খেলা শুরু হওয়ার সম্ভাবনা না থাকলে সর্বশেষ মাঠ পরিদর্শন শেষে আম্পায়ার আর ম্যাচ রেফারিরা আগেই জানিয়ে দেবেন, খেলা বাতিল।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন