চট্টগ্রাম টেস্টে আর হয়তো বোলিং করবেন না সাকিব আল হাসান।
চট্টগ্রাম টেস্টে আর হয়তো বোলিং করবেন না সাকিব আল হাসান। ছবি : শামসুল হক

চট্টগ্রাম টেস্টে আর হয়তো বোলিং করবেন না সাকিব আল হাসান। তবে অবস্থার উন্নতি হলে এবং পরিস্থিতি দাবি করলে দ্বিতীয় ইনিংসে তিনি ব্যাটিং করলেও করতে পারেন। সেটি তখন নির্ভর করবে টিম ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্তের ওপর। আজ সকালে সাকিবের করানো স্ক্যান রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে দলের একটি সূত্র।

স্ক্যান রিপোর্ট আসার পর বিসিবিও এক বিৃবতিতে জানিয়েছে, প্রথম টেস্টের আগে পাওয়া কুঁচকির চোট সামলে উঠলেও টেস্টের দ্বিতীয় দিনে ফিল্ডিং করার সময় বাম উরুর আরেক জায়গায় চোট পান সাকিব, যেটি প্রকারান্তরে কুঁচকিতেই নতুন চোট। চট্টগ্রাম টেস্ট চলাকালে বিসিবির মেডিকেল দল তাঁর চিকিৎসা চালিয়ে যাবে এবং অবস্থা পর্যবেক্ষণ করবে।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ দল সূত্রে জানা গেছে, সাকিব এই টেস্টে আর বোলিং করতে না পারলেও অবস্থা বুঝে দলের প্রয়োজনে ব্যাটিং করতে পারেন। তবে কোনো অবস্থাতেই ঝুঁকি নিয়ে তাঁকে মাঠে নামানো হবে না। সে ক্ষেত্রে সাকিব অনিশ্চিত হয়ে পড়তে পারেন মিরপুরের দ্বিতীয় টেস্টেও।

জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে তৃতীয় দিন সকালে সাকিবকে ছাড়াই মাঠে নামে বাংলাদেশ দল। সাকিব দলের সঙ্গে মাঠে এলেও সকালে ওয়ার্মআপের সময় চোটের জায়গায় অস্বস্তি বোধ করলে তাঁকে তৃতীয় দিন মাঠে না নামানোর সিদ্ধান্ত হয়। এর আগে চট্টগ্রামে তৃতীয় ওয়ানডেতে কুঁচকিতে চোট পান তিনি। কাল টেস্টের দ্বিতীয় দিনে বোলিং করতে গিয়ে ফিরে আসে সেই চোট।

default-image

আজ দিনের খেলা শুরু হওয়ার পর স্থানীয় এক হাসপাতালে সাকিবকে স্ক্যান করাতে নেওয়া হয়। তিনি আবার মাঠে নামবেন কি না, সেটি নির্ভর করছিল স্ক্যান রিপোর্টের ওপর। রিপোর্ট আসার পর যা পর্যবেক্ষণ, তাতে অন্তত বোলিং-ফিল্ডিং করতে তাঁর মাঠে নামার কোনো সম্ভাবনা নেই।

সকালে সাকিব নিজেই ফিজিওকে জানিয়েছিলেন তাঁর ব্যথার কথা। এরপর ঝুঁকি এড়াতে তাঁকে মাঠে না নামানোর সিদ্ধান্ত হয়। প্রথম ইনিংসে ব্যাট হাতে ৬৮ রান করার পর কাল ৬ ওভার বল করে ১৬ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি সাকিব।

সাকিবকে ছাড়াও তৃতীয় দিনে খারাপ হচ্ছে না বাংলাদেশের বোলিং। চা–বিরতির আগেই পড়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৭ উইকেট, রান হয়েছে ২৫৩।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন