বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

সংযুক্ত আরব আমিরাতে জৌলুশ ছড়াচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। শুধু পুরস্কারের অর্থ হিসেবেই এই বিশ্বকাপে খরচ হবে ৪৭ কোটি ৮৯ লাখ টাকা। আয়োজনের খরচ নিশ্চয়ই হাজার কোটি ছাড়াবে! কিন্তু মুদ্রার উল্টো পিঠে অন্ধকার দিকটা আসছে আফ্রিকা থেকে।

সেখানে এক টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেরই বাছাইপর্বে খেলছে মালাউয়ি। ২০২২ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আফ্রিকা অঞ্চলের উপ-আঞ্চলিক বাছাইপর্বে খেলছে মালাউয়ি। সেখানে ২২ অক্টোবর রুয়ান্ডার বিপক্ষে বাছাইপর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচটি খেলেছে দলটি।

default-image

ম্যাচ খেলার জন্য রুয়ান্ডার কিগালিতে গেছে মালাউয়ির দলটি। এরপর গত রোববার দেশে ফেরত এসেছে। কিন্তু এই সফরের জন্য কোনো অর্থ পাননি মালাউয়ির ক্রিকেটাররা।

দলের ভেতরের এক সূত্রের কথা জানিয়ে দেশটির সংবাদমাধ্যম নিয়াসা টাইমস লিখেছে, রুয়ান্ডায় যাওয়া-আসার বিমানের ভাড়া আইসিসি দিয়েছে মালাউয়ি ক্রিকেট দলকে। কিন্তু ক্রিকেটাররা এই পুরো সফরে হোটেলে কখনো সকালের নাশতা পাননি।

‘এই ছেলেরা শুধু উড়োজাহাজে যে নাশতা দেওয়া হয়, সেটা পেয়েছে। যে বিমানবন্দরে থেমেছে, সেখানে খাবার কিনতে গেলে তাদের বলা হয়, খাবারের দাম অনেক বেশি’—মালাউয়ি দলের সূত্রকে উদ্ধৃত করে লিখেছে নিয়াসা টাইমস।

default-image

রুয়ান্ডা থেকে গত রোববার বিকেল চারটার দিকে দেশে ফিরেছে মালাউয়ি দল। এরপর দলের যে ক্রিকেটাররা এনদিরান্দে অঞ্চলে থাকেন, তাঁদের চেনসিউ অঞ্চলে নামিয়ে দেওয়া হয়। এরপর হাতে দুই হাজার মালাউয়িয়ান কোয়াচা (মালাউয়ির মুদ্রা) দিয়ে দেওয়া হয়। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ২১০ টাকা!

এত কিছুর পরও মালাউয়ি বাছাইপর্বের গ্রুপ ‘এ’-তে ৭ দলের মধ্যে তৃতীয় হয়েছে। ছয় ম্যাচের চারটিতে জিতেছে। শুধু দুটি ম্যাচ হেরেছে, সেই দুটি হার আবার গ্রুপ শীর্ষে থেকে বাছাইপর্ব শেষ করা উগান্ডা ও গ্রুপে দ্বিতীয় হওয়া ঘানার বিপক্ষে।

ক্রিকেট মালাউয়ি বিবৃতিতে জানিয়েছে, তাদের দল বাছাইপর্বের চূড়ান্ত ধাপে যেতে পারেনি ঠিকই, তবে আইসিসির বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে এটিই তাদের ইতিহাসের সেরা সাফল্য।

সেই সাফল্যটা ক্রিকেটাররা এনে দিলেন আধপেটে খেলেই!

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন