পাঁচ বছর মানে ২০১৭ থেকে ২০২১ সাল। এই পাঁচ বছরে আইসিসির টুর্নামেন্ট হয়েছে তিনটি—২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়নস ট্রফি, ২০১৯ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ আর এ বছরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালে খেলেছে ভারত। সেই ফাইনালে পাকিস্তানের কাছে হেরে শিরোপা জয়ের স্বপ্ন বিসর্জন দিয়েছে তারা। এরপর ২০১৯ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরে বিদায় নিয়েছেন কোহলিরা। এ ছাড়া এ বছর হওয়া বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালেও নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরেছে ভারত।

সব মিলিয়ে ‘ব্যাকস্টেজ উইথ বোরিয়া’ প্রোগ্রামে সৌরভ এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের পারফরম্যান্স নিয়ে হতাশাই প্রকাশ করেছেন, ‘সত্যি বলতে কি, ২০১৭ ও ২০১৯ সালে ভারত ভালোই করেছে। ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে আমরা ওভালের ফাইনালে পাকিস্তানের কাছে হেরেছি। আমি তখন ধারাভাষ্যকার ছিলাম। এরপর ইংল্যান্ডে ২০১৯ সালের বিশ্বকাপে আমরা দুর্দান্ত খেলেছি। সেমিফাইনালে ওঠার পথে সব দলকেই হারিয়েছি। তবে একটা বাজে দিনে সবকিছু শেষ হয়ে গেছে।’

দলের এই সাম্প্রতিক অতীত বিবেচনা করে সৌরভ এবারের বিশ্বকাপে দলের পারফরম্যান্স নিয়ে যারপরনাই হতাশ। এবারের বিশ্বকাপে কোহলিদের পারফরম্যান্স নিয়ে তিনি বলেছেন, ‘এবারের বিশ্বকাপে আমরা যেমন খেলেছি, তা নিয়ে আমি খুব হতাশ।’ সৌরভ এরপর যোগ করেন, ‘আমার মনে হয়, গত চার-পাঁচ বছরে আমার দেখা ভারত দলের সবচেয়ে বাজে পারফরম্যান্স এটাই।’

এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরুর আগে অনেকের চোখেই সবচেয়ে ফেবারিট ছিল ভারত। কিন্তু তাদের টুর্নামেন্ট শুরু হয়েছে পাকিস্তানের কাছে ১০ উইকেটের হারে। এরপর নিউজিল্যান্ডের কাছে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ৫ উইকেটে হেরেছে তারা। সব মিলিয়ে ৯ বছরের মধ্যে এবারই প্রথম আইসিসির কোনো টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে উঠতে ব্যর্থ হয়েছে ভারত। এমন পারফরম্যান্সের পেছনে কারণ কী, এটা অবশ্য বিশ্লেষণ করেননি সৌরভ।

ব্যর্থতার কারণ বিশ্লেষণ না করলেও ভারত যে তাদের সামর্থ্যের ধারেকাছেও যেতে পারেনি, সেটা বলেছেন সৌরভ, ‘আমি ঠিক জানি না, এমনটা কেন হয়েছে। তবে আমার মনে হয়েছে, ভারতের খেলোয়াড়েরা এবারের বিশ্বকাপে পর্যাপ্ত স্বাধীনতা নিয়ে খেলতে পারেনি। কখনো কখনো বড় টুর্নামেন্টে এটা হয়। আপনি একটা জায়গায় আটকে যাবেন। পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দুটি দেখে আমার মনে হয়েছে, ভারত তাদের সামর্থ্যের ১৫ শতাংশই খেলতে পেরেছে।’

আগামী আট বছরে আইসিসির আটটি টুর্নামেন্ট হবে। এই টুর্নামেন্টগুলোয় ভারত ঘুরে দাঁড়াবে বলে মনে করেন সৌরভ। বিশেষ করে আগামী বছরে অস্ট্রেলিয়ায় হতে যাওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভালো কিছুর আশা করছেন তিনি, ‘আশা করছি, এবারের বিশ্বকাপ থেকে তারা শিক্ষা নেবে। এখন তো প্রতিবছরই আইসিসির টুর্নামেন্ট হয়। পরের আট বছরে আটটি টুর্নামেন্ট আছে। এ কারণেই ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ আছে। আশা করছি, অস্ট্রেলিয়ায় দল ভালো খেলবে।’