বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জানসেন কাল কোহলিকে পুরোনো একটা স্মৃতি মনে করিয়ে দিয়েছেন। ২০১৮ সালে ভারতের সবশেষ দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ভারতীয় দলের সঙ্গে স্থানীয় নেট বোলার হিসেবে কাজ করেছিলেন এই জানসেন। নেটেও নাকি জানসেন কোহলিকে আউট করেছিলেন। সেবার কোহলির সঙ্গে একটা সেলফিও তুলেছিলেন। তিন বছর বাদে সেই জানসেনের বলেই আউট হলেন কোহলি।

কোহলির আউট হওয়ার ভঙ্গিটা দেখেই বিরক্ত গাভাস্কার, ‘দেখলাম কোহলিকে বারবার অফ স্টাম্পের বাইরেই বল করা হচ্ছিল। এটা যে পরিকল্পনা করেই, সেটি বুঝতে সমস্যা হওয়ার কথা নয়। প্রথম ইনিংসের মতোই। কিন্তু লাঞ্চের পর মাঠে নেমে কোহলি খোঁচাই দিল। টেস্টে যেকোনো ব্যাটসম্যানই উইকেটে থিতু হতে একটু বেশি সময় নেয়। বিরতির পর তাঁকে অনেক বেশি সাবধান হতে হয়। কারণ এই সময় পা ঠিকমতো নড়ে না। জলপানের বিরতির পরও নতুন করে শুরু করতে হয়। কোহলির মতো অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান নিশ্চয়ই ব্যাপারটা জানেন।’

বারবার কেন কোহলি একই ভাবে আউট হচ্ছেন, এটার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন গাভাস্কার, ‘কোহলির ব্যাটিংয়ে নিচের হাতটা বেশি চলে। তাই বল দেখলেই সে তাড়া করে।’

default-image

কিছুদিন আগেও কোহলিদের ব্যাটিং কোচ ছিলেন সঞ্জয় বাঙ্গার। তিনিও বিরক্ত কোহলির এমন আউটের ধরনে, ‘আমি তো মনে করি নিজের শট বাছাইয়ে নিজের ওপরই রাগ হবে কোহলির। মধ্যাহ্নবিরতিতে গিয়ে ওর মনঃসংযোগ নষ্ট হয়েছিল, নয়তো ওই শটটা খেলতে যাবে কেন সে?’

বাঙ্গার কোহলির প্রতিপক্ষের পরিকল্পনাটাও বলেছেন, ‘যেকোনো দলের জন্যই কোহলিকে আউট করার এখন একটাই পরিকল্পনা। অফ স্টাম্পের বাইরে বোলিং করে যাও। কোহলি একটা সময় সেটি খোঁচা দেবেই।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন