কোহলিদের ঘরের কাজ করতে বলল বোর্ড

বিজ্ঞাপন
default-image
>ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) টুইটারে ঘরবন্দী হয়ে থাকা ক্রিকেটারদের কিছু নির্দেশনা দিয়েছে। তাঁরা কীভাবে সময় কাটাবেন, বাড়িতে থাকার সময় তাঁরা কী কী করবেন, কি করবেন না ইত্যাদি

গোটা ভারতজুড়ে চলছে লকডাউন। করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে ভারত সরকার আগামী ২১ দিন সব মানুষকে ঘরবন্দী হয়ে থাকার নির্দেশ দিয়েছে। ব্যাপারটা নিয়ে সরকার যে কতটা কঠোর, সেটি বোঝা যাচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া বিভিন্ন ভিডিও ফুটেজে। নাগরিকদের ঘরে রাখতে বিভিন্ন রাজ্যের পুলিশ রীতিমতো লাঠি হাতে তুলে নিয়েছে।

টানা ২১ দিন বাড়ি বসে থাকাটা খুব কঠিন। বিশেষ করে ব্যস্ততা যাদের জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ, তাদের এভাবে শুয়ে-বসে থাকাটা খুবই কষ্টকর। ক্রিকেটারদের জন্য ব্যাপারটা আরও বেশি কঠিন। মাঠে খেলা নেই, অনুশীলন নেই, জিমে যেতে পারছে না কেউই, বাড়িতে যদিও শারীরিক কসরতের যন্ত্রপাতি আছে, কিন্তু সেটা কতক্ষণ! টেলিভিশন দেখা, নেটফ্লিক্সে সিনেমা দেখা, বই পড়ারও একটা সীমা আছে।

২১ দিনের লকডাউনের সবে ২ দিন অতিক্রান্ত হয়েছে। এমন একটা সময়ে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) টুইটারে ঘরবন্দী হয়ে থাকা ক্রিকেটারদের কিছু নির্দেশনা দিয়েছে। তাঁরা কীভাবে সময় কাটাবেন, বাড়িতে থাকার সময় তাঁরা কি কি করবেন, কি করবেন না, নির্দেশনার উদ্দেশ্য এগুলোই। এ নির্দেশনাগুলোর অন্যতম হচ্ছে, কোহলি, রোহিতদের কেবল ঘরে বসে না থেকে বাড়ির কাজও সামলাতে বলা হয়েছে তাদের।

বিসিসিআই অবশ্য খোলাসা করেনি বাড়ির কাজ বলতে তারা কী বোঝাচ্ছেন। তবে এটার মানে তো অবশ্যই বাড়ির রান্নাবান্না, ঘর গোছানো, বিছানা পাতা, গাছে পানি দেওয়া ইত্যাদি বোঝায়। কাল এক ভিডিও তে দেখা গেছে শিখর ধাওয়ান তাঁর বাড়ির বাথরুমে বসে কাপড় পরিষ্কার করছেন। বিসিসিআইয়ের এই ঘোষণার পর ভারতীয় ক্রিকেটাররা ঘরকন্না শুরু করে দিতেই পারেন।

২১ দিনের লকডাউনে সবাইকে বাড়িতে থাকার অনুরোধ জানিয়েছেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও তাঁর স্ত্রী আনুশকা শর্মা। কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকারও বলেছেন, এই কয়টা দিন বাড়িতে থেকে করোনার বিপক্ষে লড়তে। ভারতে এখনো পর্যন্ত ৬৪৯জন করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিকে শনাক্ত করা হয়েছে। এদের মধ্যে মারা গেছেন এখনো পর্যন্ত ১৩ জন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন