১ রানের হতাশা—এমন শিরোনাম মাঝেমধ্যেই সংবাদমাধ্যমে দেখা যায়। বিশেষ করে কোনো ব্যাটসম্যান ৯৯, ১৯৯, ২৯৯...এমন রানে আউট হয়ে গেলে শিরোনামটা এ রকমই হয়! সত্যই এই ১ এমন স্কোরে আউট হওয়াটা খুবই হতাশার আর কষ্টের। তবে সেই কষ্ট বা হতাশা চাপা দিয়েই এগিয়ে যেতে হয় একজন ব্যাটসম্যানকে। কিন্তু ভারতের এক ব্যাটসম্যান সঞ্জয় পালিয়া আর ১০ জন ব্যাটসম্যানের মতো নন। ১ রানের কষ্টটা তিনি কোনোভাবেই হজম করতে পারেননি।

নিরানব্বই-টিরানব্বই নয়, সঞ্জয় পালিয়া গোয়ালিয়রে একটি ক্রিকেট ম্যাচে আউট হয়েছেন ৪৯ রানে। যার মানে ১ রানের জন্য ফিফটি পাননি। এই ১ রান করতে না পারা পালিয়াকে এতটাই হতাশ করেছে যে তাঁর ক্যাচ নেওয়া ফিল্ডারের দিকে ছুটে যান পালিয়া। শচীন পরাশর নামের ওই ফিল্ডারকে নিজের ব্যাট দিয়ে পেটাতে শুরু করেন তিনি। শুরুতে বিষয়টি বুঝতে অন্যদের একটু সময় লেগেছে। কিন্তু যখন মাঠে থাকা অন্য খেলোয়াড়েরা বিষয়টি বুঝতে পারেন, সবাই ছুটে গিয়ে সঞ্জয় পালিয়াকে থামানোর চেষ্টা করেন।

বিজ্ঞাপন
default-image

পালিয়াকে থামানোর আগেই অবশ্য তাঁর ব্যাটের আঘাতে ২৩ বছর বয়সী পরাশর মাঠে লুটিয়ে পড়েন। সেখান থেকে পরাশরকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে হাসপাতালে। এখনো পরাশরের জ্ঞান ফেরেনি বলে জানিয়েছে গোয়ালিয়র শহরের পুলিশ সুপার রামনরেশ পাচৌরি। ম্যাচটি হচ্ছিল মেলা মাঠে। সেখানকার গোলা কা মন্দির পুলিশ স্টেশনের সুপার পাচৌরি ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে বলেছেন, ‘পরাশর ক্যাচ নেওয়ার পর পালিয়া বেশ রেগে যায়।’

ক্রিকেট, ফুটবল বা অন্য যেকোনো খেলাতেই খেলোয়াড়দের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কখনো কখনো বচসায় জড়াতে দেখা যায়। এই তো কদিন আগে লিলের বিপক্ষে পিএসজির ম্যাচে মাঠে প্রতিপক্ষ এক খেলোয়াড়ের সঙ্গে বচসায় জড়িয়েছিলেন নেইমার। পিএসজির ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ম্যাচটিতে দুই হলুদ কার্ডের খাড়ায় পরে লাল কার্ডও দেখেন। একই সময়ে রেফারি লাল কার্ড দেখিয়েছেন লিলের ওই ডিফেন্ডারকেও। দুজনে মাঠ ছেড়ে যাওয়ার সময় টানেলে আবার ঝগড়ায় জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে নেইমার ওই ডিফেন্ডারকে মারতেও উদ্ধত হয়েছিলেন।

কিন্তু ক্রিকেট মাঠে ফিল্ডার ক্যাচ ধরার জন্য তাঁকে পিটিয়ে ব্যাটসম্যান জখম করেছেন, এমন নজির এর আগে দেখা যায়নি বললেই চলে। পুলিশ সুপার পাচৌরি বলেছেন, ‘পালিয়া আউট হওয়ার পর পরাশরের দিকে ছুটে যান এবং তাঁর মাথায় ব্যাট দিয়ে আঘাত করতে থাকেন। অন্য খেলোয়াড়েরা পালিয়াকে থামানোর চেষ্টা করেছেন। পরাশর এখনো হাসপাতালে আছেন, তাঁর জ্ঞান ফেরেনি।’ কে জানে বেচারা পরাশরের জ্ঞান আর ফিরবে কি না!

জ্ঞান ফিরে পরাশর সুস্থ হয়ে আবার মাঠে ফিরবেন, এটাই সবার প্রত্যাশা। পরাশর সুস্থ হয়ে ফিরুন আর না-ই ফিরুন, এরই মধ্যে সঞ্জয় পালিয়ার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মামলাটা করা হয়েছে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনে। পালিয়ার হয়তো শিগগির মাঠে ফেরা হচ্ছে না!

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন