বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অনলাইনে ব্যবসায়িক লেনদেন ও বিনিয়োগের স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান আইজিকে ইংলিশ ক্রিকেটের নতুন অফিশিয়াল পার্টনার হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার অনুষ্ঠানে এ কথা জানিয়েছেন জাইলস।

বাংলাদেশ ও পাকিস্তান সফরকে এ বিষয়ে তিনি উদাহরণও টেনেছেন। আইপিএলের বাকি অংশ যে সময় আয়োজন করতে চায় বিসিসিআই, ইংল্যান্ড দলের বাংলাদেশ ও পাকিস্তান সফর সে সময় হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। জাইলস জানিয়েছেন, এ দুটি সফরে কিছু খেলোয়াড়কে বিশ্রাম দেওয়া হতে পারে। কিন্তু সেটি আইপিএলের জন্য নয় বুঝিয়ে দিয়ে জাইলস বলেছেন, ‘এমন নয় যে তারা অন্য কোথাও ক্রিকেট খেলতে পারবে।’

default-image

অক্টোবর-নভেম্বরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। তার আগে বাংলাদেশে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে আসবে ইংল্যান্ড। জাইলস জানান, আইপিএলের বাকি অংশ আয়োজনের সময় বাড়াতে নিজেদের নির্ধারিত সূচি পাল্টানোর কোনো ইচ্ছা নেই ইসিবির। এ নিয়ে তাদের কাছে কোনো আনুষ্ঠানিক অনুরোধ আসেনি।

ভারতের সঙ্গে টেস্ট সিরিজে পঞ্চম ও শেষ টেস্টের শেষ দিনটি ১৪ সেপ্টেম্বর। এই সিরিজ খেলে এক সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে বাংলাদেশের উদ্দেশ্যে উড়াল দেবে ইংল্যান্ড দল।

এখান থেকে তারা যাবে পাকিস্তান সফরে। ১৪ ও ১৫ অক্টোবর দুটি টি-টোয়েন্টি খেলবে পাকিস্তানের বিপক্ষে। এদিকে আইপিএলের বাকি অংশ শুরু হয়ে শেষ হওয়ার কথা ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে ১৫ অক্টোবরের মধ্যে।

সংবাদমাধ্যমকে জাইলস বলেন, ‘অফিশিয়ালি আমি এখনো কিছু জানি না, কোনো কিছু পাল্টানোর ব্যাপারে কোনো অনুরোধ আসেনি। যত দূর জানি ম্যাচগুলো সূচি অনুযায়ীই হবে। তবে অফিশিয়ালি আমাদের কাছে এখনো কোনো অনুরোধ আসেনি (আইপিএলের জন্য সূচি পাল্টানোর)। সেপ্টেম্বরে পঞ্চম টেস্ট খেলে আমরা ১৯ কিংবা ২০ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশে যাব, এ ছাড়া পাকিস্তান এবং টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ যেখানেই হোক না কেন—এসব সূচি রয়েছে।’

জাইলস জানিয়েছেন, এই ব্যস্ত সূচির মধ্যে কিছু ক্রিকেটারকে তারা বিশ্রাম দেবেন। কিন্তু সেটা আইপিএলে খেলার সুযোগ করে দিতে নয়, ‘একটা পর্যায়ে গিয়ে আমরা কয়েকজনকে বিশ্রাম দেব। কিন্তু এই বিশ্রাম দেওয়ার উদ্দেশ্য, যেমন ধরুন বাংলাদেশের (সফরের) ক্ষেত্রে, অন্য কোথাও ক্রিকেট খেলার জন্য নয়।’

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এর আগে জানিয়েছে, সেপ্টেম্বরে আরব আমিরাতে আইপিএলের বাকি অংশ আয়োজন করতে চায় বিসিসিআই। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) এক সিনিয়র কর্মকর্তা পিটিআইকে জানিয়েছেন, ১৮ কিংবা ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে আইপিএলের বাকি ম্যাচগুলো আয়োজন করা হবে।

default-image

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সেই অফিশিয়াল পিটিআইকে বলছেন, ‘বিসিসিআই সংশ্লিষ্ট সবার সঙ্গে কথা বলেছে, ১৮ থেকে ২০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে (আইপিএল) শুরু হতে পারে। তবে ১৮ সেপ্টেম্বর শনিবার এবং ১৯ সেপ্টেম্বর রোববার হওয়ায় ছুটির দিনে শুরু হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।’ ফ্র্যাঞ্চাইজি দলগুলোয় করোনা হানা দেওয়ায় গত ৪ মে ৩১টি ম্যাচ হাতে রেখেই স্থগিত হয় আইপিএল।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন