তখনই চমক জাগানো এক দৃশ্যের অবতারণা ঘটল। ক্রুনাল পান্ডিয়ার সঙ্গে পোলার্ডের সম্পর্ক আজকের নয়। ২০১৬ সাল থেকে গত বছর পর্যন্ত দুজন মুম্বাই ইন্ডিয়ানসে সতীর্থ ছিলেন। সে বন্ধুত্বের কারণেই কি না, বন্ধুকে আউট করার পর আনন্দের আতিশয্যে পোলার্ডের পিঠে চড়ে বসলেন। এঁকে দিলেন চুমু!

পান্ডিয়ার এহেন কাজ-কারবার দেখে মোটেও ভালো লাগেনি সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক সুনীল গাভাস্কারের। বন্ধুত্ব যত ভালোই হোক না কেন, খেলার মাঠে এসব কাজ করার কোনো অর্থই দেখছেন না গাভাস্কার, ‘আমি জানি ও (পোলার্ড) ব্যাপারটা পছন্দ করবে না। না, এটা হতে পারে না। আপনি কারোর যত ভালো বন্ধুই হন না কেন, ম্যাচ শেষ হওয়ার পর ওই সব করা উচিত।’

default-image

বড় পান্ডিয়ার এই কীর্তি পোলার্ডেরও তেমন ভালো লাগেনি, সেটা ক্যারিবীয় অলরাউন্ডারের চেহারা দেখেই বোঝা গেছে। যদিও, কোনো প্রতিক্রিয়া দেখাননি পোলার্ড। প্রতিক্রিয়া যে দেখাননি, সেটাই আশ্চর্য লেগেছে গাভাস্কারের কাছে, ‘ক্রুনাল সৌভাগ্যবান যে পোলার্ড কিছু করেনি।’

শুধু গাভাস্কারই নন, পান্ডিয়ার এই কাজ নিয়ে সমালোচনা অন্যান্য জায়গাতেও। সাবেক পেসার রূদ্রপ্রতাপ সিং জানিয়েছেন, পান্ডিয়া বেশি বেশি করে ফেলেছেন, ‘কেউ হারতে পছন্দ করে না। কোনো খেলোয়াড় যখন ভালো খেলে না, তখন ওর সঙ্গে এসব কাজ করা উচিত নয়। আপনি জানেন না যার সঙ্গে এমন ঠাট্টা-মশকরা করছেন তার মনে তখন কী চলছে। পোলার্ড যদি পিছন ফিরে প্রতিক্রিয়া দেখাত? ও এমনিতেই হতাশ হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরত যাচ্ছিল। ও দলকে জেতাতে পারছে না। পান্ডিয়ার ওই কাণ্ড অবশ্যই বাড়াবাড়ি ছিল।’

লক্ষ্মৌ সুপার জায়ান্টসের ১৬৯ রানের জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে রোহিতের ব্যাট দারুণ কিছুরই ইঙ্গিত দিচ্ছিল। কিন্তু রোহিত যাওয়ার পর সে যা, তা–ই! তিলক বর্মা (২৭ বলে ৩৮) আর কাইরন পোলার্ড ২০ বলে ১৯ করে চেষ্টা করেছিলেন, কিন্তু সেটি যথেষ্ট ছিল না।

ক্রুনাল পান্ডিয়া ৪ ওভারে ১৯ রান দিয়ে ৩ উইকেট তুলে নিয়ে মুম্বাইকে লড়াইয়ের সুযোগটুকুও দেননি। লক্ষ্মৌকে এনে দিয়েছেন দারুণ এক জয়।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন