default-image

কুইন্সল্যান্ডে ক্রিকেট ছড়িয়ে দেওয়ার কাজ করে বুলস মাস্টার্স। তাদের আয়োজিত টুর্নামেন্টে যাওয়ার পথে গাড়িতে হার্ট অ্যাটাক হয় মার্শের। গাড়িতে থাকা জন গ্ল্যানভিল এবং ডেভিড হিলিয়েরের দ্রুত চিন্তা মার্শের জীবন বাঁচিয়েছে। বুলস মাস্টার্সের প্রধান জিমি মাহের বলেছেন, অ্যাম্বুলেন্সের জন্য অপেক্ষা না করে সরাসরি হাসপাতালের সিদ্ধান্ত খুব কাজে এসেছে।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ৯৬ টেস্ট ও ৯২ ওয়ানডে খেলেছেন মার্শ। ৯৬ টেস্টে ৩৫৫ ডিসমিসাল এই উইকেটকিপারের। একসময় টেস্ট ডিসমিসালের বিশ্ব রেকর্ড ছিল তাঁর।

পরে সে রেকর্ড হারালেও এখনো অ্যাডাম গিলক্রিস্ট (৪১৬) ও ইয়ান হিলির (৩৯৫) পর অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে সফল উইকেটকিপার মার্শ। খেলা ছাড়ার পর অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট বোর্ডে নির্বাচক কমিটির চেয়ারম্যান পদে ছিলেন ২০১৬ সাল পর্যন্ত। ২০০১ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডেও নির্বাচকের ভূমিকায় দেখা গেছে তাঁকে।

অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন তাঁর দ্রুত আরোগ্য প্রার্থনা করে বলেছে, ‘রড ৫০ বছরের বেশি সময় ধরেই অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের খুবই প্রভাবশালী চরিত্র।’ ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী নিক হকলি বলেছেন, ‘রডের খবর শুনে আমরা খুবই চিন্তিত এবং শুভকামনা জানিয়েছি। এই খেলার কিংবদন্তিদের ও জনপ্রিয়তমদের একজন রড। যারা তার শুশ্রূষা করছেন, তাঁদের ধন্যবাদ জানাই।’

নিউজ কর্প বলছে, কয়েক মিনিটের জন্য মার্শের হৃৎস্পন্দন বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। দ্রুত বুন্দাবার্গ হাসপাতালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত্যুর হাত থেকে ফিরিয়েছেন।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন