প্রতিষ্ঠানটির নাম ‘সুইগি’—অনলাইনে খাবার সরবরাহের অর্ডার নেয় তারা। বেঙ্গালুরুকেন্দ্রিক প্রতিষ্ঠানটি এরই মধ্যে ভারতের ন্যূনতম ৫০০ শহরে নিজেদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। ২০১৪ সালে যাত্রা শুরু করা সুইগি কেনার জন্যই মাস্ককে অনুরোধ করেছেন গুজরাট তারকা।

কারণ, সময়মতো খাবার সরবরাহ করতে পারে না সুইগি। শুবমান গিলের বিশ্বাস, ইলন মাস্ক সুইগি কিনলে তাদের কার্যক্রমে গতি বাড়বে।

ভারতের হয়ে ১০ টেস্ট ও ৩ ওয়ানডে খেলা শুবমান কাল টুইট করেন, ‘ইলন মাস্ক, দয়া করে সুইগি কিনুন, যেন তারা সময়মতো খাবার সরবরাহ করতে পারে।’

টুইটার কেনার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটি সংস্কার এবং আরও কার্যকর করার ঘোষণা দেন মাস্ক। এরই মধ্যে এ নিয়ে কয়েকটি টুইটও করেছেন তিনি। তাই দেখে অনেকেই মাস্ককে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান কেনার অনুরোধ করছেন। শুবমান তাঁকে সুইগি কেনার অনুরোধ জানিয়ে টুইট করার পর কেউ কেউ এমন পোস্টকে মজার হিসেবে নিয়েছেন, কেউ আবার শুবমানকে খোঁচাও মেরেছেন।

এবার আইপিএলে শুরুটা দারুণ করলেও পরে রান শুকিয়ে এসেছে শুবমানের। এ পর্যন্ত ৮ ম্যাচে ২২৯ রান করেছেন। গুজরাট ৮ ম্যাচের মধ্যে ৭টি জেতায় শুবমানের ফর্মহীনতা নিয়ে হয়তো ভাবতে হয়নি। তবে শুবমানের ভক্তরা তাঁর টুইট নিয়ে ভাবছেন। কেউ কেউ তাঁর টুইটটি গুরুত্বের সঙ্গে ভাবার অনুরোধ করেছেন সুইগি কর্তৃপক্ষকে।

তবে মজা করার লোকের তো আর অভাব নেই। সুইগির একটি ভুয়া অ্যাকাউন্ট থেকে শুবমানের টুইটটি রি-টুইট করো লেখা হয়, ‘টি-টোয়েন্টিতে তোমার ব্যাটিংয়ের চেয়েও আমরা এখনো দ্রুত (সেবা দিই)।’

টি-টোয়েন্টিতে শুবমানের স্ট্রাইকরেট ১২৬.৪০। আইপিএলে আরও কম-১২৫.৩৬। তবে সুইগি নামে এই ভুয়া অ্যাকাউন্টের এমন রসিকতাপূর্ণ পোস্ট কেউ কেউ ভালোভাবে নেননি। এক ভক্তের টুইট, ‘ভারতের একজন ক্রিকেটারের সঙ্গে এভাবে কথা বলার কোনো অধিকারই নেই তোমাদের।’

তবে সুইগির আসল অ্যাকাউন্ট থেকে এখনো শুবমানের এই টুইট নিয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন