মাঠে বসেই অস্ট্রেলিয়ার মেয়েদের ক্রিকেট দলের খেলা দেখতে পারবেন দর্শকেরা।
মাঠে বসেই অস্ট্রেলিয়ার মেয়েদের ক্রিকেট দলের খেলা দেখতে পারবেন দর্শকেরা।এএফপি ফাইল ছবি

টেলিভিশনে খেলা দেখে কি আর মন ভরে!

ভরে যে না তা আজ প্রথম সুযোগেই দেখিয়ে দিলেন অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট ভক্তরা। এ মাসের শেষ দিকে ব্রিসবেনে শুরু হবে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মেয়েদের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ। অস্ট্রেলিয়ার সময় আজ সকালে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ) এই সিরিজের টিকিট অনলাইনে বিক্রির ঘোষণা দেয়। এরপর সন্ধ্যা না গড়াতেই কিনা তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের সব টিকিট বিক্রি শেষ!

ব্রিসবেনের অ্যালান বোর্ডার ফিল্ডের গ্যালারির দর্শক-ধারণ ক্ষমতা অবশ্য মোটে সাড়ে চার হাজার। করোনাকালে স্বাস্থ্য বিধি মানতে সিএ আবার দর্শক ধারণ ক্ষমতার অর্ধেক অর্থাৎ প্রতি ম্যাচে সোয়া দুই হাজার টিকিট বিক্রি করেছে।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া তাদের ওয়েবসাইটে পইপই করে বলে দিয়েছে মাঠে খেলা দেখার সময় জোরে চিৎকার করা যাবে না, যাবে না প্রাণ খুলে গান গাওয়াও। কারণ একটিই, করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি।

তবে দর্শকদের জন্য দুঃসংবাদও আছে একটি— মাঠে প্রিয় দলের হয়ে গলা ফাটাতে পারবেন না তাঁরা। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া তাদের ওয়েবসাইটে পইপই করে বলে দিয়েছে মাঠে খেলা দেখার সময় জোরে চিৎকার করা যাবে না, যাবে না প্রাণ খুলে গান গাওয়াও। কারণ একটিই, করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি। দর্শকেরা জোরে চিৎকার করলে বা গান গাইলে তাঁদের মুখ থেকে থুতু কিংবা অন্যান্য জলকণা বেশি দূরে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকাতেই এই সতর্কতা।

কুইন্সল্যান্ড রাজ্য সরকারের নির্দেশনা মেনে আরও কিছু নিয়ম মানতে বলেছে সিএ। দর্শকদের বলা হয়েছে অসুস্থবোধ করলে বাড়িতে থাকতে। গ্যালারিতে একে অন্যের থেকে অন্তত দুটি ক্রিকেট ব্যাটের দৈর্ঘ্যের বা ১.৫ মিটার দূরত্ব বজায় রাখতেও অনুরোধ করা হয়েছে। মাঠে সব ধরনের লেনদেন স্পর্শহীন (কনট্যাক্টলেস) করতে হবে। হাইফাইভ করা যাবে না, খেলোয়াড়দের কাছে অটোগ্রাফ কিংবা ছবির আবদারও করা যাবে না।

বিজ্ঞাপন
default-image

অনলাইনে টিকিট বিক্রির সময় সব দর্শকের তথ্য টুকে রাখা হবে ও পরে দরকার হলে মুঠোফোনে বিশেষ অ্যাপের মাধ্যমে ওই দর্শকের কনট্যাক্ট ট্রেসিং করা হবে। পুরো মাঠকে ছয়টি ভাগে ভাগ করা হবে, কোনো একটি ভাগে প্রবেশাধিকার পাওয়া ব্যক্তি অন্য কোনো জায়গায় যেতে পারবেন না।

তবে একটি বিষয়ে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এখনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি। বল গ্যালারিতে দর্শকের মাঝে চলে গেলে ও কেউ বল ছুঁয়ে ফেললে কী হবে, তা এখনো অজানা।

নিউজিল্যান্ড নারী ক্রিকেট দল এরই মধ্যে ব্রিসবেনে পৌঁছে গেছে। দুই সপ্তাহের কোয়ারেন্টিনে আছে তাঁরা। দুই সপ্তাহের কোয়ারেন্টিনে আছেন অস্ট্রেলিয়া দলের নিউ সাউথ ওয়েলস, ভিক্টোরিয়া ও অস্ট্রেলিয়ান ক্যাপিটাল টেরিটোরি (এসিটি) থেকে আসা ক্রিকেটারেরাও। অ্যালান বোর্ডার ফিল্ডে প্রতিদিন তিন ঘণ্টা করে অনুশীলন করছেন কোয়ারেন্টিনে থাকা ক্রিকেটাররা। অন্য সব রাজ্য থেকে আসা অস্ট্রেলিয়া দলের বাকিরা ব্রিসবেনে পৌঁছাবেন আগামী সোমবার। সিরিজ শুরুর আগে দুই দল একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে।

বিজ্ঞাপন
আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সর্বশেষ দর্শক দেখেছে ১১ মার্চ। ঢাকায় বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের শেষ টি-টোয়েন্টি ছিল সেটি।

অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে দর্শক উপস্থিতিতে সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ হয়েছে গত মার্চে। মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনাল দেখতে মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে উপস্থিত হয়েছিলেন রেকর্ড ৮৬ হাজার দর্শক।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সর্বশেষ দর্শক দেখেছে ১১ মার্চ। ঢাকায় বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের শেষ টি-টোয়েন্টি ছিল সেটি। ওই ম্যাচের দুদিন পর সিডনিতে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের ছেলেদের দল একটি ওয়ানডে খেলেছিল দর্শকশূন্য মাঠে।

প্রায় চার মাস পর ইংল্যান্ড আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরিয়েছে গত জুলাইয়ে। ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ টেস্ট সিরিজ দিয়েই করোনাবিরতি শেষ মাঠে ফিরেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। এরপর আয়ারল্যান্ড, পাকিস্তান সফর করেছে ইংল্যান্ডে, এখন অস্ট্রেলিয়াকে আতিথেয়তা দিচ্ছে ইংলিশরা। তবে স্বাস্থ্যবিধি মানতে এখনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে গ্যালারিতে দর্শক প্রবেশে অনুমতি দেয়নি ইংল্যান্ড।

নিউজিল্যান্ডের মেয়েদের অস্ট্রেলিয়া সফরসূচি (সব ম্যাচ ব্রিসবেনে)

মন্তব্য পড়ুন 0