default-image

লড়াইটা হয়ে উঠেছিল দুই অভিজ্ঞ ক্রিকেটারের। দিনের শুরুতেই অভিজ্ঞতার দাপট দেখিয়েছেন ইংলিশ পেসার জেমস অ্যান্ডারসন। দিন যত গড়িয়েছে, অভিজ্ঞতার লড়াইয়ে তাঁর পাল্টা দিয়েছেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস। দিনের শেষটাতেও তাই এগিয়ে থাকল ম্যাথুসের দল। গলে প্রথম দিনটা শ্রীলঙ্কা শেষ করেছে ২২৯ রানে। ৬ উইকেট অক্ষত রাখার তৃপ্তি নিয়ে দিন শেষ হয়েছে স্বাগতিক দলের।

গলে প্রথম টেস্টে স্বাগতিকদের কোনো লড়াইয়ের সুযোগ দেয়নি ইংল্যান্ড। প্রথম দিন শ্রীলঙ্কার ব্যাটসম্যানদের ভুলের ফায়দা তুলেছেন ডম বেস। আর নিজের সেরাটা বের করে দলের জয় নিশ্চিত করেছেন জো রুট। দ্বিতীয় টেস্ট যেন অতটা একপেশে না হয়, সেটা নিশ্চিত করতে নেমেছেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস। প্রথম টেস্টে লড়াকু এক ইনিংস দিয়েই ছন্দে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। আর আজ ক্যারিয়ারের ১১তম সেঞ্চুরিটাও তুলে নিয়েছেন ম্যাথুস।

বিজ্ঞাপন

দিনের শুরুটা ছিল অ্যান্ডারসনের। নতুন বলটা কাজে লাগানোয় তাঁর ধারেকাছে কেউ নেই। গলের তুলনামূলক ভালো ব্যাটিং উইকেটেও সেটা আরও একবার টের পাওয়া গেছে। নিজের তৃতীয় ওভারে পাঁচ বলের মধ্যে লঙ্কান দুই ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়েছেন। নতুন বলে সিমের মুভমেন্ট কাজে লাগিয়েছেন অ্যান্ডারসন, পুরোনো বলে নিখুঁত লাইন–লেংথে বেঁধে রেখেছেন স্বাগতিকদের। ১৯ ওভার বল করেছেন। তার ১০টিই মেডেন। বাকি ৯ ওভারে দিয়েছেন ২৪ রান। শুরুর ওই দুই উইকেটের পর মধ্যাহ্নবিরতি শেষে গত টেস্টের সেঞ্চুরিয়ান লাহিরু থিরিমান্নেকেও ফিরিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু তবু দিনটা ম্যাথুসের।

অ্যান্ডারসন যেভাবে বল করেছেন, তাতে রান নেওয়ার সুযোগ ছিল না। ম্যাথুস সে চেষ্টাও করেননি। দলের সবচেয়ে অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান হিসেবে নিজের দায়িত্বটা পালন করেছেন। ইংল্যান্ডের সেরা অস্ত্রকে যোগ্য সম্মান দিয়ে সময় পার করেছেন। আর অন্য বোলারদের বলে তুলে নিয়েছেন রান। মার্ক উডের ঘণ্টায় ১৫০ কিলোমিটার গতির বলকেও বশ মানিয়েছেন। প্রথম দিনের উইকেটে ইংলিশ স্পিনারদের পাত্তাই দেননি। ২২৮ বলের ইনিংসে ১১ চারে দিন শেষ হওয়ার আগে তুলে নিয়েছেন সেঞ্চুরি।

default-image

এর চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ, মহাগুরুত্বপূর্ণ তিনটি জুটি গড়েছেন লঙ্কান সাবেক অধিনায়ক। প্রথমে ৭ রানে দুই উইকেট হারানো দলকে থিতু করেছেন থিরিমান্নের সঙ্গে ৫৯ রানের জুটিতে। দ্বিতীয় সেশনের শুরুতেই থিরিমান্নের (৪৩) ধৈর্য শেষ হলেও ম্যাথুস হাল ছাড়েননি। অধিনায়ক দীনেশ চান্ডিমালের সঙ্গে আরেকটি বড় জুটি গড়েছেন। উডের গতির সামনে ম্যাথুস দৃঢ়তা দেখালেও চান্ডিমাল ছিলেন নড়বড়ে। শেষ পর্যন্ত উডের বলেই ফিরেছেন চান্ডিমাল। ৫২ রান করে যখন চান্ডিমাল বিদায় নিচ্ছেন, দিনের খেলার তখনো প্রায় ২০ ওভার বাকি। নিরোশান ডিকভেলা ও ম্যাথুস অপরাজিত ৩৬ রানের জুটিতে দিন পার করে দিয়েছেন।

প্রথম দিন নিয়ে একটাই অস্বস্তি শ্রীলঙ্কার। একটু বেশি ধীরগতিতে এগিয়েছে তাদের ইনিংস। ৮৭ ওভারে ২২৯ রান, অর্থাৎ ওভারপ্রতি ২.৬৩ রান এসেছে আজ। তবে ইংলিশদের যতটা সম্ভব খাটিয়ে মারার পরিকল্পনা কাজে লাগিয়ে চতুর্থ ইনিংসে সেটির ফায়দা তোলা সম্ভব। গলের উইকেটে চতুর্থ ইনিংসে লক্ষ্য ছোট হলেও যে রান তোলা কত কঠিন, প্রথম টেস্টেই সেটা টের পেয়েছে ইংল্যান্ড।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন