বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ক্রিস গেইল কেন অবসর নিচ্ছেন না—এমন প্রশ্ন কম ওঠেনি। চল্লিশ পেরিয়েও আরেকটি বিশ্বকাপ খেলতে চেয়ে স্বার্থপর আচরণ করছেন কি না, সে আলোচনাও হয়েছে। প্রশ্ন ওঠাটা অস্বাভাবিক নয়। ২০১৬ সালের পর থেকে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে কোনো ফিফটি নেই তাঁর। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চলে এসেছে প্রায়। এমনিতেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে প্রিয় ওপেনিংয়ে নামা হচ্ছে না। তাই আর দেরি করা ঠিক হতো না গেইলের জন্য। ‘ইউনিভার্স বস’ আজ ঝড় তুলেছেন।

default-image

দলে প্রত্যাবর্তনের পর ৯ ইনিংসে ১০২ রান তোলা গেইল আজ মেরেছেন সাতটি ছক্কা। ইনিংসে চারটি চারও ছিল। ইনিংসের ১২তম ওভারেই আউট হয়েছেন। কিন্তু এর মধ্যেই ৩৮ বলে ৬৭ রান তোলা হয়ে গেছে গেইলের। প্রায় পাঁচ বছর পর টি-টোয়েন্টিতে পাওয়া পঞ্চাশ এসেছে ৩৩ বলে। প্রথম ম্যাচে খুব বাজে বল করা অস্ট্রেলিয়ান পেসার মিচেল স্টার্ক আজ দুর্দান্ত বল করেছেন। ৪ ওভারে মাত্র ১৫ রান দিয়ে ১ উইকেট পেয়েছেন এই ফাস্ট বোলার।

স্টার্ক ছাড়া অন্য সবাই গেইলের তোপ সহ্য করেছেন। জশ হ্যাজলউডকে পেয়েই টানা চার বলে ৬, ৪, ৪, ৪! এরপর কিছুক্ষণ চুপচাপ ছিলেন। নবম ওভারে অ্যাডাম জাম্পাকে ছক্কা মেরে স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে ১৪ হাজার মাইলফলক পেরিয়েছেন। ওই জাম্পাকেই ১১তম ওভারে টানা তিন ছকা মেরে ফিফটি পেরিয়েছেন। পরের ওভারে রাইলি মেরেডিথকে মেরেছেন আরেক ছক্কা। ওই ওভারেই অবশ্য ফিরে গেছেন গেইল। ততক্ষণে অবশ্য ম্যাচ শেষ। বাকি ৮ ওভারে ৩৩ রান দরকার ছিল। সেটা ১৭ বলেই তুলে নিয়েছেন নিকোলাস পুরান ও রাসেল।

এর আগে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং এগিয়েছে সিরিজের চেনা ছন্দে। উইন্ডিজ পেসার ওবেদ ম্যাককয় চোট পাওয়ায় মাত্র এক ওভার করতে পেরেছেন। কিন্তু ফ্যাবিয়ান অ্যালেন ও হেইডেন ওয়ালশের স্পিন অস্ট্রেলিয়াকে আটকে ফেলেছিল। অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ ৩১ বলে ৩০ রান করেছেন। সর্বোচ্চ ৩৩ রান করা ময়জেস হেনরিকেসও খেলেছেন ২৯ বল। ফলে, ৬ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১৪১ রান তুলেছে অস্ট্রেলিয়া। ১৮ রান দিয়ে ২ উইকেট পেয়েছেন ওয়ালশ।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন