বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে এমন হার চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেয়, এখনো কত পার্থক্য দুই দলের। বাস্তবতা মেনে নেওয়া উচিত। এ দেশের মানুষ সবাই ক্রিকেটের টেকনিক্যাল দিকগুলো বোঝে না। তারা ফল দেখে খুশি হয়। তাদের কাছে ভুল বার্তা পাঠানো ঠিক নয়। কার নির্দেশে অমন উইকেট বানানো হয়েছিল ওই দুই সিরিজে? কোচ? গ্রাউন্ডস কমিটি তো ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের নির্দেশই মানবে। বিসিবি সভাপতির নির্দেশনা ছিল কি না, জানি না। আমরা জানতে চাই। এ ক্ষতিটা কে করছে। তাদের খুঁজে দায়িত্ব থেকে সরানো উচিত।

default-image

তিন সংস্করণে বিশেষজ্ঞ ক্রিকেটার লাগবে, সঙ্গে বিশেষজ্ঞ ম্যানেজমেন্টও। খরচের ব্যাপার থাকবে, তবে এ বিনিয়োগটা জরুরি। দল নির্বাচনেরও গলদ ছিল বিশ্বকাপের ম্যাচগুলোতে। কোচ কৌশলগত দিক দিয়ে সহায়তা করতে না পারলে অধিনায়কের ওপর চাপ বাড়ে। এমন পারফরম্যান্সের পর দলটাকে তো দ্বীপবাসে পাঠানো যাবে না। রাতারাতি বদলানোও যাবে না। কোচিং স্টাফও যদি রেখে দিই, তাহলে কোন বার্তাটা দিচ্ছি? প্রশাসনেরও ব্যর্থতা আছে। সাকিবকে শেষ পর্যন্ত আইপিএলে খেলতে দেওয়া হলো কেন? মোস্তাফিজকে কতটা ছাড় দেওয়া হয়েছে?

আর শুধু জাতীয় দল নিয়ে ভেবে লাভ নেই। বিদেশি কোচ এসে সব ঠিক করে দেবে—এমন ভেবে লাভ নেই। বোর্ডে টেকনিক্যাল লোক লাগবে। ক্লাব ক্রিকেট বা বিভাগীয় পর্যায়ে ভালো কোচ, ট্রেইনার, ফিজিও দরকার। বিশেষ করে ট্রেনার। বায়ো-মেকানিকস বোঝে বা উৎসাহ আছে, এমন কাউকে খুঁজে বের করার পেছনে নজর দিতে হবে। দরকার পড়লে নিজেদের খরচে বাইরের দেশে খেলোয়াড়দের পাঠানো উচিত। সময়সাপেক্ষ ব্যাপার, তবে করতে হবে। ঘরোয়া ক্রিকেটে উইকেটের উন্নতি দরকার। বিদেশি কোচের পেছনে এত বিনিয়োগ, তাহলে যেসব দেশে পিচ নিয়ে গবেষণা হয়, উদ্ভাবনী কিছু করা হয়, সেখান থেকে কিউরেটর আনার চেষ্টা করা হয় না কেন?

default-image

কোন সিনিয়র খেলোয়াড় কোন সংস্করণে কত দিন খেলবে, সেটা বিশ্লেষণের সময় এসেছে। দ্বিপাক্ষিক আলোচনা করতে হবে তাদের সঙ্গে। সমঝোতা না হলে থিঙ্কট্যাংকেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। সবাই তিন সংস্করণে মানিয়ে নেওয়ার মতো না–ও হতে পারে। প্রতি সংস্করণের আলাদা গতি। সবাই ব্যতিক্রমী মেধার হয় না। দেখেশুনে ক্রিকেটারদের পেছনে বিনিয়োগ করতে হবে। টি-টোয়েন্টি দল নির্বাচনেরও বিশেষ কিছু মানদণ্ড ঠিক করে দেওয়া উচিত—কারা অ্যাথলেটিক, একটু বেশি উচ্চতার। লাগলে বুদ্ধিমত্তা মাপতে হবে। খেলা অন্য জায়গায় চলে গেছে। নজর দেওয়ার অনেক জায়গা আছে। এ বিশ্বকাপ অনেক বার্তাই দিয়েছে। শেষে এসে অস্ট্রেলিয়া ছেলেখেলা করল আমাদের নিয়ে। এটা খুবই লজ্জার। একটা বোর্ডই গত ১০ বছর ধরে আছে। তারা কতটুকু করতে পারল? চিন্তাভাবনা, দৃষ্টিভঙ্গি বদলানোর সময় এসেছে।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন