চেন্নাইকে জেতানোর পর ড্রেসিংরুমের দিকে ফিরে ইঙ্গিত জাদেজার।
চেন্নাইকে জেতানোর পর ড্রেসিংরুমের দিকে ফিরে ইঙ্গিত জাদেজার। ছবি: আইপিএল

পেন্ডুলামের মতো দুলছিল ম্যাচটি। আইপিএলে কাল রাতের উত্তেজনা ভরা রুদ্ধশ্বাস ম্যাচটি জেতার কথা ছিল কলকাতা নাইট রাইডার্সের। কিন্তু হাতের মুঠো থেকে যেন অবিশ্বাস্যভাবে ম্যাচটি বের করে নিয়ে গেলেন চেন্নাই সুপার কিংসের ব্যাটসম্যান রবীন্দ্র জাদেজা। শেষ ওভারের নাটকীয়তায় পর পর দুটি ছক্কা মেরে চেন্নাইকে উপহার দেন ৬ উইকেটের জয়। এমন রোমাঞ্চে ভরা ম্যাচটি জিতেও সবার কাছে হাসির পাত্র হয়ে রইলেন জাদেজা।

ম্যাচের শেষ ৬ বলে চেন্নাইয়ের দরকার ছিল ১০ রান। কলকাতার কমলেশ নাগরকোটির প্রথম চার বলে মাত্র তিন রান নেন চেন্নাইয়ের ব্যাটসম্যানেরা। ম্যাচটা তখন প্রায় চেন্নাইয়ের হাতছাড়া হওয়ার যোগাড়। সেখান থেকে পঞ্চম বলে ছক্কা মেরে চেন্নাইকে জয়ের আশা দেখান জাদেজা। শেষ বলে ১ রান নিলেই চলতো, কিন্তু জাদেজা আরেকবার ছক্কা হাঁকান। আইপিএলে শেষ বলে ছক্কা হাঁকিয়ে ম্যাচ জেতানোর এটা ছিল দশম ঘটনা। দুর্ভাগ্য কলকাতা নাইটরাইডার্সের, এই ঘটনায় চারবারই প্রতিপক্ষ শাহরুখ খানের দলটি।

বিজ্ঞাপন

এত সবের মধ্যে জাদেজা হাস্যরসের পাত্র কীভাবে হলেন? নিজের নাম দেখাতে গিয়ে! শেষ ছক্কাটি মেরেই প্রথমে ড্রেসিংরুমের দিকে তাকিয়ে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে ইঙ্গিত করেন ভারতীয় অলরাউন্ডার, এরপর ঘুরে পিঠের পেছনে হাত দিয়ে জার্সিতে নিজের নাম দেখানোর চেষ্টা করেন। করারই কথা, এত রোমাঞ্চের পর ম্যাচ জেতালেন! কিন্তু এখানেই ঘটে যত বিপত্তি। সাধারণত জার্সির ওপরের ভাগেই ক্রিকেটারদের নাম লেখা থাকে। জাতীয় দলের জার্সিতেও জাদেজার নামটা পিঠের ওপরের অংশে লেখা। কিন্তু চেন্নাইয়ের জার্সির ওপরের অংশে লেখা দলটির পৃষ্ঠপোষক ইন্ডিয়া সিমেন্টসের নাম।

খেলোয়াড়দের নাম লেখা নিচের অংশে। জাদেজার জার্সি নম্বরের নিচে ডাকনামটা লেখা—‘জাদ্দু!’ তা ম্যাচ শেষে নিজের নাম দেখাচ্ছেন ভেবে জার্সির ওপরের দিকে ইন্ডিয়া সিমেন্টসের নামই বারবার দেখাচ্ছিলেন জাদেজা! আর এমন ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে জাদেজার ছবি দিয়ে বেশ মজা করে মন্তব্য করছেন অনেকে।
টুইটারে অখিলেশ নামের একজন লিখেছেন, ‘তোমার জন্য গর্বিত, ইন্ডিয়া সিমেন্ট।’ মনীষ নামের আরেকজন লিখেছেন, ‘এই ঘটনার পর শেয়ার বাজারে ইন্ডিয়া সিমেন্টের দাম চড়চড়িয়ে বেড়ে যাবে।’ কিরণ লিখেছেন, ‘ইন্ডিয়া সিমেন্ট তোমার নাম মনে রাখবে।’ আরেকজন মজা করে বলছেন, ‘ইন্ডিয়া সিমেন্টের ভালো একটা বিজ্ঞাপন হয়েছে। চায়ের সঙ্গে এখন বিসকুটও মিলবে জাদেজার।’

default-image

জাদেজার জার্সির নম্বর ৮। আলিয়া নামের এক দর্শক লিখেছেন, ‘জাদেজা বলতে চাইছে এই মুহূর্তে কেকেআর ৮ নম্বর স্থানে আছে।’ প্রণব নামে একজন লিখেছেন, ‘জাদেজা ইন্ডিয়া সিমেন্টের মিলিয়ন ডলারের বিজ্ঞাপন দিয়েছে।’ রবিন লিখেছেন, ‘ তিনি ইন্ডিয়া সিমেন্টের বিজ্ঞাপনের জন্য চমৎকার সময় বেছে নিয়েছেন।’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাকে নিয়ে হাসাহাসি করলেও এসব নিয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া নেই জাদেজার। বরং এভাবে ছক্কা মেরে ম্যাচ জেতানোর প্রসঙ্গে আত্মবিশ্বাসী ছিল জাদেজার কণ্ঠ, ‘নেটে আমি খুব ভালো ব্যাটিং করছিলাম। সেটাই ম্যাচে ধরে রাখতে চেষ্টা করেছি। শেষ দুই ওভারে সেভাবে ভাবনাচিন্তার কিছু থাকে না। স্রেফ বল দেখে শট খেলার চেষ্টা করেছি। চেষ্টা করেছি নিজের শক্তির জায়গায় আস্থা রাখতে। আমি জানতাম, নাগালের মধ্যে বল এলে ছক্কা মারতে পারবই। এটা খুবই সাধারণ একটা ব্যাপার।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0