কলকাতাকে হারিয়ে মাঠ ছাড়ছেন চেন্নাইয়ের রবীন্দ্র জাদেজা ও স্যাম কারেন (পেছনে)।
কলকাতাকে হারিয়ে মাঠ ছাড়ছেন চেন্নাইয়ের রবীন্দ্র জাদেজা ও স্যাম কারেন (পেছনে)।ছবি: বিসিসিআই

ম্যাচটি জিতলে শীর্ষ চারে থাকার লড়াইয়ে অনেকটাই এগিয়ে যেত কলকাতা নাইট রাইডার্স। ওপেনার নিতীশ রানা সেই আশা জাগিয়েও ছিলেন। কিন্তু এরই মধ্যে এবারের আইপিএল থেকে বিদায় নিশ্চিত হয়ে যাওয়া চেন্নাই সুপার কিংস সেটা হতে দেয়নি। হতে দেননি আসলে রুতুরাজ গায়কোয়াড়। অসাধারণ এক ইনিংস খেলে কলকাতার বিপক্ষে চেন্নাইকে ৬ উইকেটের জয় এনে দিয়েছেন ভারতীয় ব্যাটসম্যান।

শীর্ষ চারে ওঠার লড়াইয়ে কলকাতার প্রতিদ্বন্দ্বী মূল পাঁচটি দল—রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু, দিল্লি ক্যাপিটালস, কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব, সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ও রাজস্থান র‌য়্যালস। পাঁচটি দলই খেলেছে ১২টি করে ম্যাচ। ১৪ পয়েন্ট নিয়ে বেঙ্গালুরু আছে দ্বিতীয় স্থানে। সমান পয়েন্ট পেয়েও রান রেটে পিছিয়ে থাকায় দিল্লির অবস্থান তিন নম্বরে। ১২ পয়েন্ট নিয়ে পাঞ্জাবের অবস্থান চারে। সমান ১০ পয়েন্ট করে নিয়ে হায়দরাবাদ ষষ্ঠ ও রাজস্থান সপ্তম স্থানে। ১৩টি ম্যাচ খেলে ১২ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে আছে কলকাতা। আর ১৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে থাকা মুম্বাই ইন্ডিয়ানস তাদের ধোরাছোঁয়ার বাইরে।

বিজ্ঞাপন

পাঁচ দিন আগে দিল্লি ক্যাপিট্যালসের বিপক্ষে ৫৩ বলে ৮১ রান করেছিলেন। সেদিন চার মেরেছিলেন ১৩টি, ছক্কা ১টি। কাল নিতীশ রানার ব্যাটে ছক্কা ৪টি, চার ১০টি। চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে দুবাইয়ে কাল রানার ৬১ বলে ৮৭ রানের সৌজন্যে ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৭২ রান করেছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। শুভমান গিলের (১৭ বলে ২৬) সঙ্গে ৫৩ রানের উদ্বোধনী জুটির পর বলতে গেলে কলকাতার ইনিংসকে একাই টানেন রানা। ৭.৬ ওভার থেকে ১৭.৩—এই ৫৮ বলে কলকাতার ইনিংসের ৭টি চারের ৬টিই রানার, ৩টি ছক্কার ৩টিও। শেষ দিকে ১০ বলে ২১ রান করেছেন দিনেশ কার্তিক।

default-image

বড় লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে ৫০ রানে শেন ওয়াটসনকে হারায় চেন্নাই। তবে অন্য প্রান্তে গায়কোয়াড় ছিলেন অবিচল। অম্বাতি রাইডুর সঙ্গে দ্বিতীয় উইকেটে ৬৮ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের পথেই রাখেন এই ওপেনার। রাইডুর পর দ্রুতই মহেন্দ্র সিং ধোনিও বিদায় নিলে অনেকেই মনে করেছেন, আরও একটি হারের পথেই হাঁটছে চেন্নাই। কিন্তু গায়কোয়াড় তা হতে দেননি। ৫৩ বলে ৭২ রানের ইনিংস খেলে আউট হয়েছেন তিনি। ইনিংসটি সাজিয়েছেন ছয়টি চার ও দুটি ছয়ে।

দলকে ১৪০ রানে রেখে রুতুরাজ আউট হয়ে যাওয়ার পর বাকি কাজটুকু সারেন দুই অলরাউন্ডার স্যাম কারেন ও রবীন্দ্র জাদেজা। ইংল্যান্ডের অলরাউন্ডা কারেন ১৪ বলে অপরাজিত ১৩ রান করেছেন। আর জাদেজা১১ বলে দুটি চার ও তিনটি ছয়ে অপরাজিত ছিলেন ৩১ রান করে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0