কিন্তু সিদ্ধান্তটি যে বুমেরাং হবে, তা জানত কে! মুম্বাই অধিনায়ক ও মিডিয়াম পেসার সায়লি সাতঘারের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি নাগাল্যান্ডের ব্যাটাররা।

চার ওভার মেডেন নেন তিনি। সব মিলিয়ে সাতঘারের বোলিং ফিগার ৮.৪ ওভারে ৫ রানে ৭ উইকেট! মাত্র ১৭ রানে অলআউট হয় নাগাল্যান্ড।

প্রথম চার ব্যাটারের কেউ রানের খাতা খুলতে পারেননি। দুই ওপেনার কিকাঙ্গেলা ও জয়তি শূন্য রানে আউট হন। অধিনায়ক সেন্টিলেমলা ও এলিনাও রানের খাতা খোলার আগে আউট হন।

নাগাল্যান্ডের কোনো ব্যাটার দুই অঙ্কে পৌঁছাতে পারেননি। সাতে নামা সারিবার ব্যাট থেকে এসেছে সর্বোচ্চ ৯ রান।

বোলিংয়ে মুম্বাই অধিনায়ক সাতঘারেকে দারুণ সহায়তা করেন এস থ্যাকার ও দক্ষিণী। ০ রানে ১ উইকেট নেন থ্যাকার, ১২ রানে ২ উইকেট দক্ষিণীর। ব্যাটিংয়ে নেমে মুম্বাইয়ের দুই ওপেনার এশা ওজা এবং ভ্রুশালি ভগত মোটেও সময় নষ্ট করেননি।

প্রথম চার বলের মধ্যে তিন চার ও এক ছক্কায় ম্যাচটি ১০ উইকেটে জিতে মাঠ ছাড়েন দুজন।