default-image

মদ খেয়ে গাড়ি চালিয়ে ফেঁসে গেছেন অস্ট্রেলীয় অলরাউন্ডার জেমস ফকনার। ম্যানচেস্টার পুলিশ জানিয়েছেন, তাঁর রক্তে অ্যালকোহলের পরিমাণ ছিল অনুমতিপ্রাপ্ত মাত্রার চেয়ে দুই গুণ বেশি। মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালানোর অপরাধে তাঁকে শুক্রবার আটকও করা হয়। পরে অবশ্য জামিনে ছাড়া পেয়েছেন এই অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার।
জামিনে ছাড়া পেলেও শুক্রবারের অপরাধ ফকনারকে বেশ ভোগাবেই। আগামী ২১ জুলাই তাঁকে এ ব্যাপারে ম্যানচেস্টারের একটি আদালতে হাজিরা দিতে হবে। ফকনার এই মুহূর্তে ইংলিশ কাউন্টি দল ল্যাঙ্কাশায়ারের হয়ে খেলছেন।
ম্যানচেস্টার আদালতে হাজির হবেন ইংলিশ আইনের আওতায়। কিন্তু এর পাশাপাশি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার নীতিমালার বেড়াজালে আটকে যেতে হচ্ছে তাঁকে। ফকনারের এই অপরাধ ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার শৃঙ্খলাভঙ্গের গুরুতর অপরাধের পর্যায়েই পড়ছে।
ফকনার নিজে অবশ্য তাঁর এই কাণ্ডে যথেষ্ট অনুশোচনা-দগ্ধ। বলেছেন, মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালানোটা তাঁর উচিত হয়নি। তাঁর ভাষায় পুরো বিষয়টিই ‘অবিবেচকের সিদ্ধান্ত।’
এই অবিবেচকের সিদ্ধান্তটা হচ্ছে গাড়ি চালানো। মদ খেয়েছেন, গাড়ির স্টিয়ারিং হুইলের পেছনে না বসলেই হয়তো এই বিব্রতকর অবস্থা এড়িয়ে যেতে পারতেন তিনি। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার পারফরম্যান্স ডিরেক্টর প্যাট হাওয়ার্ডের মন্তব্যও অনেকটা এই লাইনেই, ‘ফকনারের সিদ্ধান্তটা ছিল বাজে। ওর কোনোভাবেই গাড়ি চালানো উচিত হয়নি। ব্যাপারটা মানুষের জান-মালের ক্ষতির কারণও হতে পারত।’
ফকনার নিজেও বিব্রত এই ঘটনায়। যেকোনো ধরনের শাস্তিই তিনি মাথা পেতে নিতে ইচ্ছুক, জানিয়েছেন এ কথাও। তবে একটি শাস্তি তিনি ইতিমধ্যেই পেয়ে গেছেন। ল্যাঙ্কাশায়ারের হয়ে ইয়র্কশায়ারের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ব্লাস্টের ম্যাচে তাঁকে মাঠে নামানো হয়নি। সূত্র: এএফপি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0