>জয়সূচক শটটা এসেছে মেহেদী হাসান মিরাজের ব্যাট থেকে। তবে এ জয় এসেছে সবার মিলিত প্রচেষ্টায়। তবু আলাদা করে কয়েকজনের কথা তো বলতেই হয়, ব্যাটে-বলে যাঁদের পারফরম্যান্সে শততম টেস্টটা স্মরণীয় করে রাখল বাংলাদেশ
default-image

তামিম ইকবাল
৪৯ ও ৮২ রান
হোক না লক্ষ্যটা মাত্র ১৯১ রানের। তবু পঞ্চম দিনের খেলা, ভয় তো ছিলই। সেটা আতঙ্কে রূপ নিল যখন সিরিজে প্রথমবারের মতো পঞ্চাশ পেরোনোর আগেই ভেঙে গেল উদ্বোধনী জুটিটা। কিন্তু তামিম দারুণ সব শট আর বুদ্ধিদীপ্ত ব্যাটিংয়ে শ্রীলঙ্কান স্পিনারদের ব্যাকফুটে পাঠিয়ে দিয়েছেন। চাপ, শঙ্কা, ঘূর্ণি—সবকিছুকে পাশ কাটিয়ে গড়ে দিয়েছেন ঐতিহাসিক জয়ের ভিত্তি। ম্যান অব দ্য ম্যাচ? অবশ্যই তামিম!

default-image

সাকিব আল হাসান
১১৬ ও ১৫ রান; ৬ উইকেট
দ্বিতীয় দিনের শেষ বিকেলে অবিশ্বাস্য পাগলাটে ব্যাটিং, আবার পরের দিনই তা ভুলিয়ে দিলেন ইতিহাসে নাম লেখানো সেঞ্চুরিতে। সাকিব বলেই হয়তো এটা সম্ভব! কষ্টে পাওয়া লিডটা যেন জয়ে রূপ নেয়, সেটাও নিশ্চিত করেছেন বোলিংয়ে। গুরুত্বপূর্ণ সময়ে শ্রীলঙ্কার ৪ উইকেট নিয়ে লক্ষ্যটাকে আটকে রেখেছেন দুই শর নিচে। ম্যাচের সবচেয়ে আলোচিত চরিত্রও সাকিব।

default-image

সাব্বির রহমান
৪২ ও ৪১ রান
তাঁকে চারে নামতে দেখেই চমকে উঠেছিলেন অনেকে। টেস্টে যে চার নম্বরে নামেন দলের সেরা ব্যাটসম্যান। সেখানে সাব্বির! পরিস্থিতিটাও কেমন, ২২ রানে পরপর দুই বলে আউট সৌম্য-ইমরুল। কী দুর্দান্তই না খেললেন ‘টি-টোয়েন্টির সাব্বির’! ধৈর্য, দৃঢ়তা আর সাহসিকতায় সামলে নিয়েছেন হেরাথ-দিলরুয়ান-সান্দাকানদের। তামিমের সঙ্গে তাঁর জুটিটাই মাঝের ওই ধস সামলে নেওয়ার শক্তি জুগিয়েছে দলকে।

default-image

মুশফিকুর রহিম
৫২ ও ২২* রান ; ৫ ডিসমিসাল
শঙ্কা নিয়ে শুরু হয়েছিল টেস্টের তৃতীয় দিন। সবার চিন্তায় আগের দিনের শেষ বিকেলের ব্যাখ্যাতীত ব্যাটিং। ওই অবস্থায় অধিনায়ক নিজে খেলেছেন দুর্দান্ত, তাঁর শান্ত–ধীরস্থির ব্যাটিংয়ে সাকিবও পান স্থিরতা। দ্বিতীয় ইনিংসেও নামতে হয়েছে খুব গুরুত্বপূর্ণ সময়ে। সাকিব আউট হয়ে যাওয়ার পর দায়িত্বটা বেড়ে গেছে আরও। ঠান্ডা মাথায় দলকে জয় এনে দিয়ে তবেই ছেড়েছেন মাঠ।

default-image

মোস্তাফিজুর রহমান
৫ উইকেট
চতুর্থ দিনে দিমুথ করুনারত্নে ও কুশল মেন্ডিস ম্যাচটা নিয়ে যাচ্ছিলেন বাংলাদেশের নাগালের বাইরে। তখনই স্বমূর্তিতে আবির্ভাব মোস্তাফিজের। দ্বিতীয় সেশনে দুর্দান্ত ৭ ওভারের এক স্পেল; ৩ উইকেট তুলে গুঁড়িয়ে দিলেন শ্রীলঙ্কার মিডল অর্ডার। শেষ দিনেও শ্রীলঙ্কার ব্যাটসম্যানদের মনে আতঙ্ক ছড়িয়েছেন বাঁহাতি পেসার, আবারও বুঝিয়ে দিয়েছেন তাঁর মায়াবী কাটারের মহিমা!

default-image

মোসাদ্দেক হোসেন
৭৫ ও ১৩ রান
অভিষেক টেস্টটা সেঞ্চুরি দিয়েই রঙিন করে রাখতে পারতেন, যদি অন্য প্রান্তে শেষ ব্যাটসম্যান নেমে না যেতেন! শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়ার আগে প্রতিটি শটেই ছিল আত্মবিশ্বাসের বিচ্ছুরণ। দ্বিতীয় ইনিংসে যখন নামলেন, জয় তখনো ২৯ রান দূরে। সাকিব আউট হয়ে যাওয়ায় চাপটা আরও বাড়ল। ১৩ রান এমনিতে তেমন কিছু নয়, কিন্তু কালকের পরিস্থিতি বিচারে অমূল্য।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন