default-image

গতবার নেট রানরেটের খাঁড়ায় কাটা পড়ে প্লে-অফের স্বাদ পাওয়া হয়নি কলকাতা নাইট রাইডার্সের। সে জন্যই কি না, এবার প্রথম থেকেই বেশ উদ্দীপ্ত তারা। গতবার টুর্নামেন্টজুড়ে কলকাতার যেসব সমস্যা দেখা গিয়েছিল, যেমন: টপ অর্ডারে রসায়নের অভাব, সঠিক বিদেশি নির্বাচনে সমস্যা, অত্যধিক রাসেল–নির্ভরতা—প্রথম ম্যাচে অন্তত সে সমস্যাগুলোকে ধামাচাপা দিতে পেরেছে ফ্র্যাঞ্চাইজিটি। ফলাফল, সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে ১০ রানের জয়ে শুভসূচনা।

টপ অর্ডারে নিতিশ রানা, রাহুল ত্রিপাঠি, শেষ দিকে দীনেশ কার্তিকের ছোট্ট ঝড়, বল হাতে রাসেল-সাকিবদের আলো ছড়ানো, মরগানের বুদ্ধিদীপ্ত অধিনায়কত্ব—সবকিছু মিলিয়ে প্রথম ম্যাচে কলকাতার অতৃপ্তির তেমন কোনো জায়গা ছিল না। যে তৃপ্তি আরও বেড়েছে ম্যাচ শেষে। কারণ, জেতার পরেই নিশ্চিত হয়েছে, আইপিএলের ইতিহাসে ১০০ ম্যাচ জেতা হয়ে গেছে কলকাতা নাইট রাইডার্সের। মুম্বাই ইন্ডিয়ানস আর চেন্নাই সুপার কিংসের পর তৃতীয় দল হিসেবে শততম ম্যাচ জিতল কলকাতা।

দুর্দান্ত এক অর্জন, সন্দেহ নেই। ম্যাচের পর দলের মালিক বলিউড তারকা শাহরুখ খান তাই ভোলেননি দলকে শুভেচ্ছা জানাতে। কলকাতার ম্যাচের প্রায় সময়ই শাহরুখকে মাঠে দেখা গেলেও গত রাতে ছিলেন না এই বলিউড তারকা। সামনাসামনি না থাকলেও ম্যাচ শেষে নিজের উপস্থিতি ঠিকই জানান দিয়েছেন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। বাংলাদেশের সাকিব আল হাসানসহ দলের অনেক খেলোয়াড়কে টুইটে মেনশান করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কিংবদন্তি এই চলচ্চিত্র তারকা, ‘১০০ ম্যাচ জিতে খুব ভালো লাগছে। প্রসিদ্ধ কৃষ্ণ, দীনেশ কার্তিক, নিতিশ রানা, রাহুল ত্রিপাঠি, আন্দ্রে রাসেল, হরভজন সিং (অল্প সময়ের জন্য হলেও তোমাকে কলকাতার জার্সি গায়ে দেখে ভালো লেগেছে), সাকিব আল হাসান, প্যাট কামিন্স—আসলে সবার খেলাই দুর্দান্ত লেগেছে।’

বিজ্ঞাপন

তালিকায় সবার ওপরে আইপিএলের সফলতম দল, পাঁচবারের শিরোপাজয়ী রোহিত শর্মার মুম্বাই ইন্ডিয়ানস। ২০৪ ম্যাচের মধ্যে তারা জিতেছে ১২০ ম্যাচে, হেরেছে ৮৪ ম্যাচ। ওদিকে তিনবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সুপার কিংস ১৮০ ম্যাচ খেলে জিতেছে ১০৬ বার, হেরেছে ৭৩ বার। মুম্বাই, চেন্নাই ও কলকাতার পর এই তালিকায় নাম লেখানোর ক্ষেত্রে এগিয়ে আছে বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু ও পাঞ্জাব কিংস (সাবেক কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব)।

গত রাতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেটে ১৮৭ রান তোলে কলকাতা। টপ অর্ডারে শুভমান গিল ব্যর্থ হলেও ওপেনিং সঙ্গী নিতিশ রানা ও ওয়ান ডাউনে নামা রাহুল ত্রিপাঠির কল্যাণে রানের চাকা সচল থাকে দলটার। ৫৬ বলে ৮০ করেন রানা, ওদিকে ২৯ বলে ৫৩ রান তোলেন ত্রিপাঠি। ৯ বলে ২২ রানের ছোট্ট ঝড়ে দলের রান ১৮৭-তে নিয়ে যান সাবেক অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক।

পরে ব্যাট করতে নেমে ১৭৭ রানেই আটকে যায় সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন