এ ম্যাচ দিয়েই ফিরবেন, এ ম্যাচেই এই বিশ্বকাপে তাঁর অভিষেক হবে। একে সামনে রেখেই এত প্রস্তুতি, এত অপেক্ষা। ‘মার্সিয়া’ বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়ার সে ম্যাচকেই ঠেলে দিয়েছে সংশয়ের মুখে। মাইকেল ক্লার্কের মনের ঝড়টা একবার অনুভব করুন! তবে ম্যাচ হলে অস্ট্রেলীয় অধিনায়ক তৈরি আছেন বলেই জানিয়েছেন, ‘প্রস্তুতিটা অসাধারণ হয়েছে। আমি নিজের সর্বোচ্চটাই দিয়েছি, যা আমার আত্মবিশ্বাস বাড়িয়েছে।’ মাঠে নামলে শতভাগই দেবেন ক্লার্ক, ‘কোনো নির্দিষ্ট জায়গায় আটকে না থেকে আমি মাঠের সবখানেই ফিল্ডিং করতে চাই। এমনটা করতে কোনো বাধাও নেই। আমি শত মাইল বেগে দৌড়াতে চাই, ডাইভ দিতে চাই। আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে এখন আমি বেশি চনমনে, বেশি ফিট।’ এএফপি।
২০০৫ সালে বাংলাদেশের কাছে হেরেছিল অস্ট্রেলিয়া। সেই ম্যাচটি ক্লার্ক ভোলেননি, বাংলাদেশকে তাই হালকাভাবে নিচ্ছেন না মোটেও, ‘কার্ডিফের সে ম্যাচে আমি ছিলাম। গত বছর জিম্বাবুয়ের কাছে হারের দিনেও ছিলাম। এসব ঘটনাই প্রমাণ করে, আপনি কাউকেই হালকাভাবে নিতে পারেন না। অন্য যেকোনো প্রতিপক্ষের মতো বাংলাদেশেরও শক্তি, দুর্বলতা আমরা জানি। গ্যাবায় চ্যালেঞ্জ নিতে আমরা প্রস্তুত।’

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন