default-image

ধারাবাহিকতার অভাব ও খামখেয়ালি আচরণের জন্য দলে কখনোই থিতু হতে পারেননি উমর আকমল। এখন তো নিষিদ্ধই পাকিস্তানের এই ক্রিকেটার। পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব পেয়েও তা যথাযথ কর্তৃপক্ষকে না জানানোয় গত এপ্রিলে আকমলকে তিন বছরের নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। এই রায়ের বিপক্ষে মে মাসে আপিলও করেছিল আকমল।। আজ হয়েছে সেই আপিলের শুনানি। পিসিবি জানিয়েছে আপিলের রায় পরে ঘোষণা করা হবে।

ম্যাচ পাতানো বা স্পট ফিক্সিংয়ের কোনো অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি ২৯ বছর বয়সী আকমলের বিপক্ষে। কিন্তু এর সঙ্গে জড়িত সন্দেহভাজন লোক তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করার পর কর্তৃপক্ষকে জানায়নি তিনি। দুর্নীতি বিরোধী আইনের ২.৪.৪ ধারা ভাঙার দায়ে দুটি অভিযোগ তোলা হয়। তদন্তে সহযোগিতা না করার কারণে এবং একগুঁয়ে আচরণে তিন বছরের শাস্তি দিয়েছিল শৃঙ্খলা প্যানেলের চেয়ারম্যান বিচারক ফজল-মিরান চৌহান।

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড আজ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে , ‘সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারক বিচারপতি ফকির মুহাম্মদ খোখার ( অবসরপ্রাপ্ত) নিরপেক্ষ বিচারক হিসাবে উভয় পক্ষের যুক্তিতর্ক শুনেছেন। বিচারক এখন চূড়ান্ত রায় ঘোষণার জন্য সময় নিয়েছেন।’ পিসিবি আরও বলেছে এ নিয়ে তারা আর কোনো কথা বলবেন না।

পাকিস্তানের হয়ে ১৬ টেস্ট, ১২১ ওয়ানডে আর ৮৪ টি-টোয়েন্টি খেলেছেন আকমল। ২০১৯ সালের অক্টোবরের পর অবশ্য আর জাতীয় দলে সুযোগ মেলেনি আকমলের।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন