default-image

শুধু রান পাওয়াই নয়, যে দুটি চার ও একটি ছক্কা মেরেছেন, সেটাতেও ছিল আসল কোহলির ছায়া। কিন্তু নিজের আসল রূপে ফেরা আর ঝড়ের ইঙ্গিত দিয়েও থেমে গেলেন কোহলি। বেঙ্গালুরুও জয়ের জন্য ২১০ রান তাড়া করতে নেমে আশার আলো জ্বালিয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ৫৪ রানে হেরে গেছে বেঙ্গালুরু। টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৯ উইকেটে ২০৯ রান করেছে পাঞ্জাব কিংস। জবাবে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৫৫ রান তুলতে পেরেছে বেঙ্গালুরু।

default-image

কোহলির ছন্দে ফেরার ইঙ্গিতে শুরুতে আশা দেখছিল বেঙ্গালুরু। ১৪ বলে ২০ রান করে তিনি আউট হয়ে ফেরার পর দ্রুতই আউট হয়ে ফেরেন ফাফ ডু প্লেসিও। এরপর চলে যান মহিপাল লমরোরও। ৭ রানের মধ্যে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়া বেঙ্গালুরুকে আশা দেখাচ্ছিল রজত পাতিদার ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের জুটি। কিন্তু ৩ বলের মধ্যে এই দুজন ফিরে গেলে সেই আশাও নিভে যায়। চতুর্থ উইকেট জুটিতে ৩৭ বলে ৬৪ রান তোলেন পাতিদার ও ম্যাক্সওয়েল। পাতিদার ২১ বলে ২৬ ও ম্যাক্সওয়েল ২২ বলে ৩৫ রান করেছেন। বেঙ্গালুরু শেষ ৭ উইকেট হারিয়েছে ৫১ রানে।

default-image

এর আগে দুই ইংলিশ ব্যাটসম্যানের ঝড়ে পাঞ্জাব কিংস ২০০ পার করতে পারে। জনি বেয়ারস্টো ২৯ বলে ৬৬ রান করেছেন। আরেক ইংলিশ ব্যাটসম্যান লিয়াম লিভিংস্টোনের রান ৪২ বলে ৭০। পাঞ্জাব ঝড় তোলে শুরু থেকেই, পাওয়ারপ্লের ৬ ওভারেই ওঠে ৮৩ রান। বেয়ারস্টো তাঁর ইনিংসে ৪টি চারের সঙ্গে মারেন ৭টি ছয়, লিভিংস্টোন ৫টি চারের সঙ্গে মেরেছেন ৪টি ছয়। এ ঝড়ের মধ্যেও বেঙ্গালুরুর ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা ৪ ওভারে ২ উইকেট নিয়েছেন ১৫ রানে।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন