স্টোকস–ঝড়টা সবচেয়ে বেশি টের পেয়েছেন জশ বেকার। ইনিংসের ১১৭তম ওভার করতে এসেছিলেন বাঁহাতি এই স্পিনার। প্রথম বলটা স্টোকসের ব্যাটের সামনে পড়েছিল। মাথার ওপর দিয়ে তুলে মেরেছেন স্টোকস। পরের বলটা উড়েছে মিড উইকেট দিয়ে। তৃতীয় বলটার জন্য বেছে নিয়েছেন লং অফকে। পরের দুই বলও সীমানা ছাড়ার আগে মাটির স্পর্শ পায়নি। ৫৯ বলে ৭০ রান নিয়ে ওভার শুরু করেছিলেন স্টোকস, ওভারের পঞ্চম বলেই শতক পূর্ণ হয়ে গেল। ৬৪ বলের শতকে ৬টি চারের সঙ্গে ১০টি ছক্কা। কিন্তু শেষ বলে ছক্কা না হয়ে চার না হওয়াতে বুঝি আক্ষেপটাই বেশি হচ্ছে স্টোকসের!

default-image

৯৯তম ওভারে নেমেছিলেন স্টোকস। উল্টো দিকে তাঁর সঙ্গী দারুণ ব্যাট করা বেডিংহাম। ৯০ বলে ৮১ রানে অপরাজিত এই ব্যাটসম্যান। প্রথম তিন বলে কোনো রান নেই, চতুর্থ বলে চার মেরে রানের দেখা পেলেন স্টোকস। তাঁর দ্বিতীয় চার এসেছে ১৪তম বলে। তবু ৩০ বল শেষে স্টোকসের রান ছিল ১২। এড বার্নার্ডকে টানা দুই বলে চার ও ছক্কায় ৩২ বলে ২২ রানে পৌঁছে গেলেন।

পরের তিন ওভারে ফিঞ্চ ও বার্নার্ডের বলে আরও দুটি করে চার ছক্কা মারলেন। বার্নার্ডের ২৫তম ওভারের দ্বিতীয় ও তৃতীয় বলে মারলেন দুই চার। পরের বলে সিঙ্গেল। ৪৭ বলে ৫ চার ও ৩ ছক্কায় পঞ্চাশ পূরণ স্টোকসের। অর্থাৎ প্রথম পঞ্চাশের পথে তাঁর শেষ ৩৮ রান এসেছে ১৭ বল থেকে।

স্টোকস যখন ৫০ পূর্ণ করেছেন, বেডিংহামের রান তখন ১০৫। অর্থাৎ স্টোকসের প্রতি রানের বিপরীতে অর্ধেক রানও নিতে পারেননি বেডিংহাম।

এই পার্থক্য একটু পরই আরও প্রকট হয়েছে। স্টোকস পরের ৫০ রান তুলেছেন ১৭ বলে। এর মাঝে নিজের নামের পাশে আর মাত্র ৬ রান যোগ করতে পেরেছেন মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। পরের ওভারেই জ্যাক লিচকে টানা দুই ছয়ে বেডিংহামকে পার করে ফেলেছেন স্টোকস। পরের ওভারে লিচকে আবার টানা দুই ছয় মেরেছেন।

এর মাঝেই বেরসিকের মতো মধ্যাহ্নবিরতির ডাক এসেছে। ৪ উইকেটে ৫৪৯ রান ডারহামের। ১৪৮ বলের পঞ্চম উইকেট জুটিতে এসেছে ১৮৯ রান। ৮২ বলে ১৪৭ রানে অপরাজিত স্টোকসের সঙ্গে মাঠ ছেড়েছেন ১১৯ রানে থাকা বেডিংহাম।
ডারহামের হয়ে দ্রুততম শতকের রেকর্ড গড়া স্টোকসের সামনে এখন অন্য রেকর্ডের হাতছানি। ডারহামের হয়ে এক মৌসুমে সর্বোচ্চ ছক্কা ১৯টি। স্টোকস দুই ঘণ্টার কম সময়ে সে রেকর্ডকে হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছেন।

বিরতির পর আবারও শুরু করেছিলেন। কিন্তু খুব বেশিক্ষণ ঠিকতে পারেননি। আরু দুই ছক্কা মেরে বিদায় নিয়েছেন ৮৮ বলে ১৬১ রান করা স্টোকসের ইনিংস শেষ পর্যন্ত থেমেছে ব্রেট ডি’অলিভেইরার বলে। সিমানার কাছে ধরা পড়ার আগে ৮ চার ও ১৭ ছক্কা মেরেছেন স্টোকস। ১৭১ বল ও ২২০ রান যোগ করে থেমেছে পঞ্চম উইকেট জুটি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন