বিজ্ঞাপন

সাকিব নিষেধাজ্ঞায় পড়ার আগে সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি খেলেছিলেন গত বছর সেপ্টেম্বরে। তখন তাঁর রেটিং পয়েন্ট ছিল ৩৫৫। ৩৯০ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে ছিলেন ম্যাক্সওয়েল। অস্ট্রেলীয় স্পিনিং অলরাউন্ডার গত ১৪ মাসে পয়েন্ট হারিয়েছেন ১৭০।

default-image

করোনার কারণে সাকিবকে খুব বেশি ম্যাচ হাতছাড়া করতে হয়নি। এই সময়ে খেলতে পারেননি সাতটি-টোয়েন্টি। এই সাত ম্যাচ না খেলায় রেটিং পয়েন্ট হারিয়েছেন ৮৭। ম্যাক্সওয়েল এক থেকে তিনে নেমে গেলেও সাকিব আছেন দুইয়েই। বড় লাফ দিয়েছেন নবী, আফগান অলরাউন্ডার তিন থেকে উঠে এসেছেন একে।

টি–টোয়েন্টি শীর্ষ পাঁচ অলরাউন্ডার

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ফিরতে আরেকটু দেরি হলেও সাকিব এই মাসেই ফিরছেন প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে। সেটিও ২০ ওভারের ম্যাচ দিয়ে। বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ খেলতে বাঁহাতি অলরাউন্ডার আজ ফিটনেস পরীক্ষা দিয়েছেন, উত্তীর্ণও হয়েছেন। ফিটনেস নিয়ে হয়তো আরও কিছুদিন কাজ করবেন তিনি।

এরপর শুরু করবেন ব্যাটিং-বোলিংয়ে ঝালিয়ে নেওয়ার কাজ। বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টিতে সাকিব খেলবেন কোন দলে, সেটি নিশ্চিত হয়ে যাবে কাল প্লেয়ার্স ড্রাফটের পর। সব ঠিক থাকলে জানুয়ারিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরবেন ৩৩ বছর বয়সী অলরাউন্ডার।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন