দিনের শুরুটা অবশ্য বাংলাদেশের জন্য ছিল হতাশার। দ্বিতীয় দিন শেষ করা ব্রেন্ডন টেলর ও তাকুজোয়ানশে কাইতানোর জুটি অবিচ্ছিন্ন ছিল প্রথম ঘণ্টার পরও। প্রথম ঘণ্টায় আগের দিনের স্কোরের সঙ্গে আরও ৬০ রান যোগ করেছে জিম্বাবুয়ে, ১৪ ওভারে।

দিনের প্রথম ওভারটা মেডেন দিয়ে শুরু করেছিলেন ইবাদত হোসেন। শুরুতে আঁটসাঁট বোলিং করলেও পরে বাউন্ডারি দিয়েছেন তিনি বেশ কয়েকটি। প্রথম ঘণ্টায় টেলর ও কাইতানো মিলে মেরেছেন মোট আটটি বাউন্ডারি, ৭ চারের সঙ্গে একটি ছয় হয়েছে এ সময়ে।

অভিষেকে ফিফটি পেয়ে গেছেন কাইতানো। ১৫৯ বলে সেটি পূর্ণ করেছেন তিনি। মাত্র ৬ষ্ঠ জিম্বাবুইয়ান ওপেনার হিসেবে অভিষেকেই ফিফটি পেলেন তিনি।

ক্যারিয়ারের ১১তম ফিফটিও পেয়ে গেছেন টেলর। দিনের ৬ষ্ঠ ওভারে সাকিব আল হাসানকে এনেছিলেন মুমিনুল হক। তবে তার দ্বিতীয় বলেই লং-অন দিয়ে ছয় মেরেছেন টেলর। তার ফিফটিও হয়ে গেছে সে শটেই, মাত্র ৫৮ বলেই মাইলফলকে গেছেন জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক।

এরপর অভিষেকে ফিফটি পেয়ে গেছেন কাইতানোও। ১৫৯ বলে সেটি পূর্ণ করেছেন তিনি। মাত্র ৬ষ্ঠ জিম্বাবুইয়ান ওপেনার হিসেবে অভিষেকেই ফিফটি পেলেন তিনি।

আগেরদিনই ব্যাটিংয়ের জন্য সহায়তা বেড়েছে হারারের উইকেটে। যেটুকু ঘাস, তাও শুকিয়ে গেছে প্রায়। ফলে পেসারদের বেশ একটা খাটুনিই অপেক্ষা করছে সামনে। সঙ্গে উইকেটে নেই টার্নও। আগের দিনই তাসকিন আহমেদ বলেছিলেন, এখানে ধৈর্য ধরতে হবে তাদের।