টেস্টের টপ অর্ডার ব্যাটিংয়ে ১২ দলের মধ্যে ৯ নম্বরে বাংলাদেশ।
default-image

টেস্ট ক্রিকেটে গত দুই বছর দাপট দেখিয়েছে বোলাররা। প্রথম ইনিংসে ৩০০ রান করতে পারলেই এখন টেস্ট জয়ের ভিত পাওয়া যায়। প্রায় প্রত্যেক টেস্ট খেলুড়ে দেশই ব্যাটিং সমস্যায় ভুগছে। টেস্টের ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানেরা বাকিদের তুলনায় একটু বেশিই পিছিয়ে।

টেস্ট ম্যাচে নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে প্রথম ইনিংসে বড় স্কোর খুবই দরকার। সে জন্য ওপরের দিকের ব্যাটসম্যানদের কাছ থেকে দল বড় রান প্রত্যাশা করে। কিন্তু ২০১৮ সাল থেকে সেরা পাঁচ ব্যাটসম্যানের সম্মিলিত গড়ে বাংলাদেশের অবস্থান ১২টি টেস্ট খেলুড়ে দেশের মধ্যে ৯ নম্বরে। এর আগের কয়েক বছর টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের সময় ভালো কাটলেও গত দুই বছরে গ্রাফ নিচে নেমে এসেছে। আফগানিস্তান এবং জিম্বাবুয়েও এখন এ জায়গায় বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে।

গত দুই বছর ধারাবাহিকভাবে সেরা পাঁচ টেস্ট ব্যাটসম্যানকে একসঙ্গে খেলাতে পারেনি বাংলাদেশ। বিশ্রাম ও নিষেধাজ্ঞার কারণে সাকিব আল হাসান টেস্ট দলে নিয়মিত ছিলেন না। চোট ও বিশ্রামের কারণের তামিম ইকবালকেও নিয়মিত টেস্ট দলে পায়নি বাংলাদেশ। এই বছর টেস্ট দল থেকে বাদ পড়েন আরেক অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ। মুমিনুল হক ও মুশফিকুর রহিম ছাড়া বাংলাদেশ দলের সেরা পাঁচ ব্যাটসম্যানের কেউই ধারাবাহিকভাবে টেস্ট খেলেনি। যার প্রভাব পড়েছে পরিসংখ্যানেও।

২০১৮ সালে থেকে ব্যাটিং গড়

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন