টেস্টে ফিরেই দারুণ লড়াই সাকিবের।
টেস্টে ফিরেই দারুণ লড়াই সাকিবের।ছবি: শামসুল হক

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা হয়েছে আগেই। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষেই ওয়ানডে সিরিজে ‘সিরিজ সেরা’ হয়ে সেটি উদ্‌যাপন করেছিলেন। চট্টগ্রামে সাকিব এবার উদ্‌যাপন করছেন টেস্ট ক্রিকেটের ধ্রুপদি সংস্করণে ফেরাটা।

পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংস এরই মধ্যে খেলে ফেলেছেন। দলের বড় ভরসা হয়ে সেটিকে দীর্ঘায়িত করার লক্ষ্যেই এখন লড়ছেন তিনি। কাল শেষ প্রথমে মুশফিকুর রহিম ও পরে লিটন দাসকে নিয়ে লড়েছিলেন, আজ সকালে শুরুতেই লিটন ফেরার পর সেটি করছেন মেহেদী হাসান মিরাজকে সঙ্গে নিয়ে। এ প্রতিবেদন লেখার সময় বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৩০১।

দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরুর পর দলীয় সংগ্রহে মাত্র ৬ রান যোগ করতে না করতেই ফিরে যান লিটন দাস—ব্যক্তিগত ৩৮ (৬৭ বলে) রানে। ক্যারিবীয় স্পিনার জোমেল ওয়ারিক্যানের অফ স্টাম্পের ওপর পড়া এক বলে ব্যাক ফুটে গিয়ে কাট করতে গিয়ে বোল্ড হন তিনি। মঞ্চ প্রস্তুত ছিল লিটনের জন্য। কিন্তু তিনি সেটি ব্যবহার করতে পারলেন না। পরিশ্রম দিয়ে গড়া ভিতটা কাজে লাগাতে পারলেন না তিনি। সাকিব আল হাসানের সঙ্গে লিটনের জুটিটা ছিল ৫৫ রানের।

default-image

লিটনের ফেরার পর উইকেটে এসেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তিনি মোটামুটি ভালোই খেলে যাচ্ছেন। ধীরে সুস্থে বলের মেধা বিবেচনা করেই খেলছেন। যদিও ওয়ারিক্যানের বলে মাথা একটু গরম করে শট খেলতে গিয়ে সুযোগ দিয়েছিলেন। কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজ ফিল্ডার সেই সুযোগ নিতে পারেননি। এখনো পর্যন্ত ৬৩ বলে ৩১ রান করে অপরাজিত মিরাজ।

বিজ্ঞাপন

সাকিবকে আজ সামনে থেকেই নেতৃত্ব দিতে হবে বাংলাদেশের ইনিংসে। এখনো পর্যন্ত সেটি তিনি করছেনও। ১৩৬ বল খেলে করেছেন ৬১ রান। বাউন্ডারি আছে মাত্র ৫টি। নিজের স্বাভাবিক প্রবণতাগুলো আড়াল করেই চট্টগ্রাম টেস্টে ব্যাটিং করে যাচ্ছেন সাকিব।

default-image

সেটি তিনি আরও কতটা বেশি সময় ধরে করতে পারেন, সেটির ওপরই নির্ভর করছে বাংলাদেশের ইনিংসের ভবিষ্যৎ।

চট্টগ্রাম টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সেরা বোলার বাঁ হাতি স্পিনার ওয়ারিক্যানই। এখনো পর্যন্ত চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের উইকেটে তিনিই কাঁপিয়েছেন বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপকে। তাঁর দখলে আছে ৪ উইকেট। পাঁচ উইকেট পেয়ে যেতে পারতেন এরই মধ্যে। কিন্তু দুর্ভাগ্য তাঁর মিরাজের ক্যাচ পড়ে যাওয়ায় সেটি হয়নি। মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, সাদমান ইসলামের পর আজ সকালে নিয়েছেন লিটনের উইকেট।

টেস্টের প্রথম দিন ৯০ ওভার ব্যাটিং করে ৫ উইকেটে ২৪২ রান তোলে বাংলাদেশ। সাদমানের ব্যাট থেকে আসে সর্বোচ্চ ৫৯ রান। সাকিব আর লিটন অপরাজিত থেকে শেষ করেছিলেন প্রথম দিনের খেলা।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন