default-image

খেলার বাইরে ছিলেন প্রায় দুই মাস। মাঠের বাইরে যে এই সময়টা খুব ভালো কেটেছে, তা-ও নয়। হাঁটুর অস্ত্রোপচার, পুনর্বাসন এবং অনুশীলনে ফেরা মিলিয়ে তামিম ইকবাল মোটামুটি চ্যালেঞ্জের মধ্য দিয়েই পার করেছেন সময়টা। সেই চ্যালেঞ্জ পেরিয়ে প্রথম পরীক্ষায়ই তাঁকে জয়ী ঘোষণা করল পাকিস্তানের বিপক্ষে কাল খেলা ৮১ রানের ইনিংস।
যেকোনো পর্যায়ের ম্যাচেই সেঞ্চুরি বাড়তি আত্মবিশ্বাস জোগায়। আরও ১৯টি রান করতে না পারার আফসোস তামিমের আছেই। তবে সিডনিতে কাল ম্যাচ শেষে আফসোসের চেয়ে তৃপ্তিই বেশি ঝরল বাংলাদেশের বাঁহাতি ওপেনারের কণ্ঠে, ‘যেকোনো ম্যাচেই এক শ রান করতে পারলে অন্য রকম আত্মবিশ্বাস পাওয়া যায়, অনুভূতিটাও অন্য রকম হয়। তবে আমি খুব খুশি যে, ফিরে এসেই ভালো শুরু করতে পেরেছি। যে আত্মবিশ্বাসটা হারিয়ে গিয়েছিল সেটা একটু হলেও ফিরে পেয়েছি।’
তামিম খুশি দলের পারফরম্যান্সেও। হ্যাঁ, পাকিস্তানের কাছে ৩ উইকেটে ম্যাচ হারলেও তামিম এই ম্যাচ থেকে খুঁজে পাচ্ছেন অনেক ইতিবাচক দিক, ‘ফলাফল আমাদের পক্ষে না এলেও এই ম্যাচ থেকে আমরা অনেক ইতিবাচক দিক খুঁজে নিতে পারি। পাকিস্তানের মতো দলের বিপক্ষেও একটা পর্যায়ে মনে হচ্ছিল আমরা জিতে যাব। সবার আত্মবিশ্বাস এতে বাড়বে। বড় দলের বিপক্ষে এভাবে লড়াই করতে পারলে ফল সব সময় ওদের পক্ষে যাবে না, আমাদের দিকেও আসতে পারে। আমাদের জন্য খুবই ভালো একটা ম্যাচ হয়েছে।’
অস্ট্রেলিয়ার কন্ডিশনে পাকিস্তানের বিপক্ষে এই ম্যাচ সাহস বাড়িয়ে দিচ্ছে বাংলাদেশ ওপেনারের। যার জোরে তিনি বলতে পারছেন, ‘বিদেশের মাটিতে এসেও যদি আমরা আমাদের কাজগুলো ঠিকভাবে করি তাহলে ম্যাচ জেতা সম্ভব, সেটা আজকের ম্যাচই প্রমাণ করে।’ তামিমের দৃষ্টি এখন আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ প্রস্তুতি ম্যাচের দিকে, ‘আমাদের আরেকটা প্রস্তুতি ম্যাচ আছে। সেটা জিততে পারলে সবার আত্মবিশ্বাস আরও বাড়বে। ১৮ তারিখের জন্য প্রস্তুতিটা তখন ভালো থাকবে।’
কাল বাংলাদেশ দলের স্কোরবোর্ডে আরও ২০টা রান যোগ হলেই ফলটা অন্য রকম থাকতে পারত বলে বিশ্বাস তামিমের। সেটা যে হয়নি, সে জন্য তামিমের কাঠগড়ায় মিডল অর্ডার ব্যাটিংয়ের বিপর্যয় আর স্লগ ওভারের বোলিং, ‘একপর্যায়ে আমরা পরপর তিনটি উইকেট হারিয়ে ফেলি। রিয়াদ ভাইয়ের রানআউট, আমি আউট হলাম, তারপর মুশফিক আউট হলো। ২-৩ ওভারের মধ্যেই এটা হয়েছে। তা ছাড়া বোলিংয়ে শেষের দিকে আমরা হয়তো বাউন্ডারির বল বেশি দিয়ে ফেলেছি।’

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন