default-image

এবার আইপিএলে দুজনের মধ্যে লড়াইটা হাড্ডাহাড্ডিই চলছে। তবে আদতে দুজনের মধ্যে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বিতা নাকি এ নিয়ে নেই। কুলদীপ তো মনেপ্রাণে চান, আইপিএলের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি যাতে চাহালই হন!

কাল নিজের সাবেক দল কলকাতার বিপক্ষে ম্যাচসেরা হওয়ার পর কুলদীপ তাঁর এমন চাওয়ার কারণটাও ব্যাখ্যা করেছেন, ‘সে আমার বড় ভাইয়ের মতো। সব সময় উৎসাহ দিয়ে এসেছে। চোটে পড়লে বা এমন সময়ে সব সময় আমাকে ফোন করত সে। আমি সত্যিই চাই, যাতে সে-ই পার্পেল ক্যাপটা (সর্বোচ্চ উইকেটশিকারির স্মারক ক্যাপ) পায়।’

একসময় ভারতের সীমিত ওভারের দলে নিয়মিত সদস্য ছিলেন দুজন। তাঁদের তোপে জায়গা হারিয়েছিলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন, রবীন্দ্র জাদেজারাও। তবে ফর্ম পড়ে গেছে, অধারাবাহিক পারফরম্যান্সে দুজনই জায়গা হারিয়েছেন। সম্প্রতি জাতীয় দলে ফিরলেও সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলা হয়নি তাঁদের।

এ মৌসুমে দুজনই আছেন দুর্দান্ত ফর্মে। কুলদীপ বলছেন, নিজের আত্মবিশ্বাস অনেক বেড়ে গেছে তাঁর, ‘আমি যেকোনো সময়ের চেয়ে এখন আরও ভালো বোলার। আমি মানসিক দিক দিয়ে অনেক শক্ত এখন। জীবনে ব্যর্থ হলে আপনি ভাববেন, “আমি কোথায় উন্নতি করতে পারি?” আপনি ভুল থেকে শিখবেন ব্যর্থ হলেই। এসব নিয়ে কাজ করেছি আমি। এখন আর ব্যর্থতার কোনো ভয় নেই আমার।’

default-image

আইপিএলের গত দুই আসরই ভুলে যাওয়ার মতোই ছিল কুলদীপের। ২০২০ সালে ৫ ম্যাচ খেলে ১ উইকেট নেওয়ার পর বাদ পড়েছিলেন। গতবার শুরুতে কলকাতার একাদশে জায়গা পাননি। পরে ছিটকে গিয়েছিলেন হাঁটুর চোটের কারণে। তবে এবার মোস্তাফিজুর রহমানদের দিল্লির স্পিন আক্রমণে প্রথম পছন্দ কুলদীপই। কাল সেই কলকাতাকে ১৪৬ রানে আটকে দেওয়ার পেছনে প্রথম বড় ভূমিকাটা রেখেছিলেন তিনিই।

সময়টা উপভোগ করছেন কুলদীপ, সেটি নিশ্চিতই। সময়টা উপভোগ করছেন চাহালও। ঘুরেফিরে তাই আসছে ভারত দলে দুজনের জুটি ফিরিয়ে আনার কথাও। গতকাল ম্যাচশেষের পুরস্কার হার্শা ভোগলে যেমন বলছিলেন, ‘কুলদীপ উইকেট পাচ্ছে, চাহাল উইকেট পাচ্ছে, দেখে মনে হচ্ছে ২০১৭-১৮ ফিরে এসেছে।’

জাতীয় দলে দুজন একসঙ্গে খেলেছিলেন গত বছরের জুলাইয়ে, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। সেটিও ছিল ভারতের দ্বিতীয়সারির দল। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল ও স্বাগতিকদের বিপক্ষে সিরিজের জন্য বিরাট কোহলিরা ব্যস্ত ছিলেন ইংল্যান্ডে। তবে এবারের আইপিএলে এখন পর্যন্ত যা পারফরম্যান্স, তাতে সামনের বিশ্বকাপে দুজনকে বাদ দিয়ে দল গড়া কঠিনই হবে ভারতের জন্য। অবশ্য যদি পরিস্থিতিটা এমন দাঁড়ায়, যে দলে শুধু একজনের জায়গা? তাহলে নিশ্চয়ই কুলদীপ বলবেন, সেটি প্রাপ্য চাহালেরই! কুলদীপকে নিয়ে ঠিক একই কথা চাহাল বললেও হয়তো অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন