default-image

গত সেপ্টেম্বর থেকে বাংলাদেশ ক্রিকেটের অনেক কিছুই দেখে ফেলেছেন প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের পর ভঙ্গুর বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব নেন। শুরুতেই তিনি দেখেছেন আফগানিস্তানের কাছে বাংলাদেশের হতাশাজনক টেস্ট হার। এরপর দলের সেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানকে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হতে দেখেছেন। ভারতে টি-টোয়েন্টি ও টেস্টের হারও বেশি দিন আগের কথা নয়। কিন্তু এত কিছু দেখেও একটু অপূর্ণতা থেকেই গিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকান কোচের। দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবালকেই যে পাকিস্তান সফরে যাওয়ার আগে দেখেননি ডমিঙ্গো!
কিন্তু লাহোরে তামিমকে দেখার অভিজ্ঞতা এখন পর্যন্ত খুব একটা সুখকর নয় ডমিঙ্গোর। প্রথম ম্যাচে ৩৪ বলে ৩৯ রানের ইনিংসের পর আজ তামিম খেলেছেন ৫৩ বলে ৬৫ রানের ইনিংস। খালি চোখে উন্নতি মনে হলেও দুটি ম্যাচই বাংলাদেশ হেরেছে। সমালোচনা হচ্ছে তামিমের মন্থর ব্যাটিং নিয়েও। দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি শেষ সংবাদ সম্মেলনে ডমিঙ্গোও বললেন, তামিমের ব্যাটিং নিয়ে কাজ করার আছে।


লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে ম্যাচ শেষে ডমিঙ্গো বলেছেন, ‘এটাই ওর (তামিম) সঙ্গে আমার প্রথম কাজ করা। ও কীভাবে টি-টোয়েন্টি খেলছে, সেটা দেখছি প্রথমবার। আমাদের সবারই উন্নতি করার জায়গা আছে, সামনে এসব নিয়ে আলোচনা হবে। আশা করি, সে তার খেলাকে পরের ধাপে নিয়ে যাবে। তবে হ্যাঁ, এখানে কাজ করার জায়গা আছে।’
দলের অন্যান্য ওপেনারদের নিয়েও কথা বলেছেন ডমিঙ্গো। পাকিস্তান সিরিজে লিটন দাস ও সৌম্য সরকারকে খেলানো হচ্ছে মিডল অর্ডারে। দুজনই হয়েছেন ব্যর্থ। লিটন-সৌম্যকে নিচে খেলানোর ব্যাখ্যা দিয়েছেন প্রধান কোচ, ‘টপ অর্ডারে অনেক সুযোগ পেয়েছে সৌম্য। ও খুবই ভালো ক্রিকেটার। কিন্তু আমাদের নিচে খেলার কেউ নেই যে দ্রুত রান নিতে পারে। তাই সৌম্যকে নিচে রাখছি। লিটনও তাঁর নিয়মিত জায়গার বাইরে খেলছে। আমরা ভিন্ন কিছু চেষ্টা করছি। দেখি নতুন দায়িত্বে ওরা কেমন করে। টি-টোয়েন্টিতে কে কোন জায়গায় খেলছে, সেটি বড় বিষয় নয়। ম্যাচের পরিস্থিতিটাই বড় বিষয়।’

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন