ব্যাট হাতে তামিমরা ব্যর্থ।
ব্যাট হাতে তামিমরা ব্যর্থ। ছবি: এএফপি

যেন একটুও ঘাম ঝরল না। বাংলাদেশকে আগে ব্যাট করতে পাঠিয়ে মাত্র ১৩১ রানে অলআউট করল নিউজিল্যান্ড। আর সেই ছোট্ট লক্ষ্যটা ২ উইকেট খরচায় তাড়া করল, ১৭২ বল হাতে রেখে! ডানেডিনে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচ জিততে যেন কোনো পরিশ্রমই হলো না টম ল্যাথামদের।

ব্যাটসম্যানদের এমন ভরাডুবি বাংলাদেশ অধিনায়ক তামিম ইকবালের দুশ্চিন্তা বাড়িয়ে দিল। যে ওয়ানডের ব্যাটিং নিয়ে বাংলাদেশ দল গর্ব করে, সেই ব্যাটিংয়ের কারণেই যে আজ বাংলাদেশের এমন হার। ক্রাইস্টচার্চে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচের আগে এই ব্যাটিং দুর্বলতা নিয়েই ভাবতে হবে অধিনায়ককে।

বিজ্ঞাপন
default-image

আজ ম্যাচ শেষে তামিম বলছিলেন, ‘আমার মনে হয়েছে আমরা খুব বেশি আলগা শট খেলেছি। তাঁরা ভালো বল করেছে। কিন্তু আমরা কিছু বাজে শট খেলেছি। আমাদের নিজেদেরই দোষ। আমরা নিজেদের ব্যাটিং নিয়ে অনেক গর্ব করি। সেটা আজ কাজে লাগেনি। ১৩১ এই উইকেটে যথেষ্ট রানের কাছাকাছি না। আশা করি ভুলগুলো ধরতে পারব এবং পরের ম্যাচে ভুল এড়িয়ে চলব। আগেই বলেছি, আমরা আমাদের ব্যাটিং নিয়ে অনেক গর্ব করি।’

ডানেডিনের কন্ডিশন ও কিউই বোলারদের দুর্দান্ত বোলিংয়ের কাছেই খেই হারান বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা। অথচ নিউজিল্যান্ডে প্রথম ম্যাচ খেলার আগে বাংলাদেশ প্রস্তুতির যথেষ্ট সময় পেয়েছে।

default-image

তাই প্রথম ম্যাচের ব্যর্থতার জন্য প্রস্তুতির ঘাটতিকে কারণ হিসেবে দেখাচ্ছেন না তামিম, ‘আমরা কুইন্সটাউনে কিছুদিন ছিলাম। আমাদের প্রস্তুতি আমরা নিয়েছি। এসব ব্যাপারে আমরা অভিযোগ করতে পারি না। এসব আমাদের জন্য নতুন না। আমরা প্রায়ই নিউজিল্যান্ড আসি। যদিও নিউজিল্যান্ড আমাদের দেশে আসে না (হাসি), সেটা ভিন্ন কথা। তবে এই কন্ডিশন আমাদের কাছে নতুন না। কী হতে পারে আমরা সেটা জানি। পরের ম্যাচে আশা করি ভালো কিছু করে দেখাতে পারব।’

হার থেকে অবশ্য অধিনায়ক তামিম ইতিবাচক হিসেবে পাচ্ছেন অভিষিক্ত মেহেদী হাসানের পারফরম্যান্স। ম্যাচ শেষে মেহেদীর কথা আলাদা করে বলতে শোনা গেল তামিমকে, ‘ওর প্রথম শটটা দারুণ ছিল। ভালো হতো সেটা ধরে রাখতে পারলে। আমার মনে হয়েছে ও বোলিং ভালো করেছে। এই কন্ডিশনে স্পিন বোলিং সহজ নয়। মনে হয়েছে ও যথেষ্ট সাহস দেখিয়েছে।’

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন