তামিম-মুশফিকদের যা বললেন কারস্টেন

বিজ্ঞাপন
default-image
>আজ জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের সঙ্গে অনলাইন সভা করেছেন বিশ্বকাপজয়ী কোচ গ্যারি কারস্টেন।

কাজটা প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো আগেও করেছেন। নিজে প্রধান কোচ, কিন্তু ক্রিকেটারদের দিকে তাকিয়ে জায়গা ছেড়ে দিয়েছেন অন্য কোচদের জন্য। বাংলাদেশে আসার আগে পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসন যেমন ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রধান কোচ। ইংল্যান্ডেও বোলিং কোচ ছিলেন তিনি। বাংলাদেশেও ওটিসের অভিজ্ঞতা পুরোপুরি কাজে লাগাতে চাইতেন ডমিঙ্গো। সে জন্য একদিন জাতীয় দলের অনুশীলনের দায়িত্ব ওটিসের হাতে তুলে দেন ডমিঙ্গো।

তামিম ইকবালের প্রিয় কোচ আবার স্থানীয় মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। এমনও উদাহরণ আছে। ডমিঙ্গো মাঠে থাকার পরও সালাউদ্দিনের সঙ্গে নিজের মতো করে কাজ করে গেছেন তামিম। ক্রিকেটারদের এসব ক্ষেত্রে স্বাধীনতা দেওয়ায় অবশ্য বিসিবি ডমিঙ্গোর ওপর বিরক্ত হয়েছিল।

আজ আবার ক্রিকেটারদের অনলাইন বৈঠকে ডমিঙ্গো ডেকে আনেন ভারতের হতে ২০১১ বিশ্বকাপজয়ী কোচ গ্যারি কারস্টেনকে। কারস্টেন আসায় কোচ-ক্রিকেটারদের অনলাইন সভা স্বাভাবিকের চেয়ে একটু বড় হয়। জাতীয় দলের নিয়মিত ক্রিকেটারের বাইরেও অনেকে ছিলেন কারস্টেনের ক্লাসে। আর কোচিং প্যানেলের সদস্যরা তো ছিলেনই।

প্রায় ১ ঘণ্টা ২০ মিনিটের সভায় বিভিন্ন বিষয়ে ক্রিকেটারদের সঙ্গে কথা বলেছেন এই দক্ষিণ আফ্রিকান। জাতীয় দলের অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের বেশ কিছু প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন। নিজের খেলোয়াড়ি জীবনের অভিজ্ঞতাও ক্রিকেটারদের সঙ্গে ভাগাভাগি করেছেন।

বৈঠকে অংশ নেওয়া এক ক্রিকেটার বলেছেন, ‘তিনি (কারস্টেন) বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেছেন। যা সামনে আমাদের কাজে লাগবে।’ জানা গেছে, সভায় ২০১১ বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন দল ভারতকে কীভাবে গুছিয়ে এনেছিলেন, সেই গল্প শুনিয়েছেন কারস্টেন। দেশের মাটিতে বাংলাদেশ বেশ ভালো খেললেও বিদেশের মাটিতে ধারাবাহিকতা দেখাতে পারেনি এখনো। কারস্টেন বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের বিদেশের মাটিতে আরও ভালো করার ব্যাপারে কথা বলেছেন।

প্রধান কোচ ডমিঙ্গোও খুশি। হোয়াটসঅ্যাপে ক্রিকেটারদের সঙ্গে কারস্টেনের বৈঠকের ব্যাপারে জানতে চাইলে ডমিঙ্গো শুধু বলেন, ‘সব ভালোই হয়েছে।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন