বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

৬২ টেস্টে ৪ হাজার ৫০৮ রান নিয়ে পাল্লেকেলে টেস্টে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে নেমেছিলেন তামিম। মুশফিকের সংগ্রহ (এই টেস্টে ব্যাটিংয়ে নামার আগে) ৭২ টেস্টে ৪ হাজার ৫৩৭ রান।

অর্থাৎ ২৯ রানে পিছিয়ে ছিলেন তামিম। আজ প্রথম দিনে অষ্টম ওভারে বিশ্ব ফার্নান্ডোর বল স্কয়ার লেগে পাঠিয়ে ১ রান নিয়ে মুশফিককে পেছনে ফেলেন তামিম। তখন তিনি ব্যক্তিগত ৩০ রানে ব্যাট করছিলেন। আজ ১০১ বলের ইনিংসে দুর্দান্ত ব্যাট করেছেন বাংলাদেশের এই ওপেনার। সোজা ব্যাটে খেলতে খেলতে পৌঁছে গিয়েছিলেন ‘নড়বড়ে নব্বই’-এর ঘরে।

default-image

ব্যক্তিগত ৯০ রানে থাকতে স্লিপে খোঁচা মেরে আউট হন তামিম। দারুণ ছন্দে থেকে হঠাৎ ওই শট খেলে তামিম কেন ‘আত্মহনন’ করলেন, সেটি বড় প্রশ্ন। সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে টেস্টে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হওয়ার উপলক্ষ উদ্‌যাপন করতে পারতেন তামিম।

এ ছাড়া আসলে তামিমের দেশের হয়ে টেস্টে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হওয়া উদ্‌যাপনের তেমন কোনো উপলক্ষ ছিল না। কেননা মুশফিক কাল দ্বিতীয় দিনে ব্যাটিংয়ে নেমে তামিমকে পেছনে ফেলতে পারেন। দুজনের মধ্যে ব্যবধান মাত্র ৬১ রানের। তামিমের সংগ্রহ এখন ৪ হাজার ৫৯৮ রান।

দেশের হয়ে টেস্টে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হওয়া নিয়ে তামিম-মুশফিকের এই দ্বৈরথ চলছে বেশ কিছুদিন ধরেই। গত বছর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজে তামিম-মুশফিক বেশ কাছাকাছি অবস্থান করছিলেন। গত দেড় বছরে এ নিয়ে চারবার দুজনের মধ্যে টেস্টে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের শীর্ষস্থান হাতবদল হলো।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজে তামিমকে টপকে শীর্ষে ওঠেন মুশফিক। এ বছর ৩ ফেব্রুয়ারি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে মুশফিককে পেছনে ফেলে শীর্ষে উঠে আসেন তামিম। মজার ব্যাপার, সেদিনই তামিমকে টপকে আবারও শীর্ষস্থান দখল করেন মুশফিক। আজ আবার জায়গাটার দখল নিলেন তামিম।

কাল কি তাহলে মুশফিক?

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন