default-image
>বিশ্বকাপে তিন নম্বরে সাকিব আল হাসান ছিলেন অনন্য, অসাধারণ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে ছুটিতে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ নায়ক। কিন্তু এ সফরে যে সাকিবের ‘তিন নম্বরে’র দায়িত্ব মোহাম্মদ মিঠুন নেবেন, সেটি ঢাকায় বসেই ঠিক করা। গতকাল শ্রীলঙ্কা বোর্ড সভাপতি একাদশের বিপক্ষে গতকাল প্রস্তুতি ম্যাচে মিঠুন এ জায়গায় নিজেকে ভালোভাবেই প্রমাণ করেছেন।

সাকিব আল হাসান থাকবেন না, এটা জানা গিয়েছিল বিশ্বকাপ শেষ হওয়ার আগেই। লিটন দাসও অনুপস্থিতির সংখ্যা বাড়িয়ে দিয়েছেন। তবু লিটনের পাঁচ নয়, বাংলাদেশ দলের মূল চিন্তা ছিল সাকিবের তিন নিয়েই। কে খেলবেন এই গুরুত্বপূর্ণ জায়গায়?

শূন্যস্থান চাইলেই পূরণ করা যায়। সমস্যা সৃষ্টি করেছে বিশ্বকাপ ও তার আগে থেকে সাকিবের ফর্ম। নিজে থেকেই এ কঠিন জায়গা বেছে নিয়েছিলেন তিনি। এতটাই দুর্দান্ত খেলেছেন যে অবধারিতভাবেই তাঁর বিকল্পের ঘাড়ে উঠবে অনেক বড় এক বোঝা। জেনে-বুঝে সে ভার নেওয়া তো বটেই সাকিবের সঙ্গে তুলনীয় হতে যাওয়াটাও বেশ ঝুঁকির।

প্রস্তুতি ম্যাচে সে দায়িত্ব নিয়েছেন মিঠুন এবং সফলভাবে সেটা পালন করেছেন। ভারপ্রাপ্ত কোচ খালেদ মাহমুদ অবশ্য জানিয়েছেন তিনে সফরের আগেই ভেবে রেখেছেন মিঠুনের কথা, ‘যখন জেনেছিলাম যে সাকিব আসবে না, তখনই ওর কথা মনে হয়েছে। মিঠুনের সঙ্গে আগ থেকেই কথা বলে রেখেছি এ ব্যাপারটা নিয়ে এবং সে খুব ভালোভাবে সেটা করছে। মিঠুনও চেয়েছে তিনে ব্যাট করতে। আশা করি গতকালের প্রস্তুতি ম্যাচ ওকে বাড়তি উৎসাহ দেবে, সামনের তিন ম্যাচে ও ভালো করবে।’

গতকাল প্রস্তুতি ম্যাচে ম্যাচের মেজাজ বুঝে বেশ দারুণ খেলেছেন মিঠুন। মুশফিকের সঙ্গে জুটিতে নিজে স্ট্রাইক রোটেট করার দায়িত্ব নিয়েছিলেন। আবার মাহমুদউল্লাহ ও সাব্বিরকে পেয়ে দ্রুত রান তোলার কাজটা করেছেন এই ব্যাটসম্যান। মাহমুদও মিঠুনকে নিয়ে সন্তুষ্টির কথা জানালেন, ‘মিঠুনকে নিয়ে খুবই সন্তুষ্ট। এখানে আসার আগেও চট্টগ্রামে ৮৫ রান করেছে। আমার ধারণা সে আমাদের জন্য তিনে খুব ভালো করতে পারবে। মিঠুন তো একসময় ওপেনও করত। এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ জায়গা, এখানে আমরা এমন একজনকে চাই যে স্থিতিশীল। যে সময় নিয়ে ব্যাট করতে পারবে।’

শ্রীলঙ্কা সফরের দল ঘোষণার পর অবশ্য তিনে অন্য কাউকে দেখার সম্ভাবনা জেগেছিল। বিশ্বকাপে লিটন দাসের কাছে জায়গা হারিয়েছিলেন মিঠুন। লিটন পারিবারিক কারণে এ সফরে আসতে পারেননি। ফলে মিঠুনকে তাঁর পরিচিত পাঁচেই দেখার সম্ভাবনা ছিল। সে ক্ষেত্রে আবারও দলে ফেরা এনামুলের তিনে নামার সম্ভাবনা জেগেছিল। অথবা নিজেদের পজিশন থেকে এগিয়ে আনার সম্ভাবনা ছিল মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহকে। তবে দলের লাইন আপে এত রদবদলের পক্ষে ছিলেন মাহমুদ, ‘সাকিব খুব ভালো করছিল, আমাদের তাই এই জায়গা নিয়ে আমরা খুবই চিন্তিত ছিলাম এ পজিশন নিয়ে। তিনে কে ব্যাট করতে পারবে ? মিঠুন যেহেতু পারফর্ম করেছে, আমাদের ব্যাটিং ফরমেশনও ঠিক থাকল। এটা পুরো দলের জন্যই ভালো।’
প্রস্তুতি ম্যাচে কোচের চিন্তাকে সঠিক প্রমাণ করেছেন, মূল সিরিজে পারবেন তো?

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন