বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের আউট হওয়ার দৃশ্য কয়েক বল পরপরই দেখা গেছে।
বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের আউট হওয়ার দৃশ্য কয়েক বল পরপরই দেখা গেছে। ছবি: এএফপি

খবর, বাংলাদেশ আবার হেরেছে। এবারের নিউজিল্যান্ড সিরিজের সবচেয়ে বাজে হারটা শেষ ম্যাচের জন্য জমিয়ে রেখেছিল বাংলাদেশ দল। মাহমুদউল্লাহ চোটে পড়ায় লিটন দাসের নেতৃত্বে খেলতে নামা বাংলাদেশ আজ সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টিতে ৭৬ রানে অলআউট হয়েছে, ম্যাচ হেরেছে ৬৫ রানে।

খবরের প্রতিক্রিয়ায় একটা করণীয় ঠিক করে দেওয়া যায়। সেটি এই, এরপর থেকে বাংলাদেশ নিউজিল্যান্ডে গেলে সেটিকে ‘সফর’ বলা থেকে বিরত থাকতে হবে।

নিউজিল্যান্ড দেশটা সুন্দর, সেখানে সফরে গেলে উড়ুক্কু মন ঘুরঘুর করতে চাইবে, তা-ই স্বাভাবিক; তা আপনি ভ্রমণপিয়াসী হোন বা না হোন। বাংলাদেশ দল নিউজিল্যান্ডে যাওয়ার পর থেকে যেভাবে হেরেই চলেছে, তাতে নিউজিল্যান্ডে কাটানো এই দিনগুলোকে বাংলাদেশ দল আক্ষরিক অর্থেই ‘সফর’ হিসেবে নেয় কি না, শ্লেষের সুরে প্রশ্নটা ওঠা অস্বাভাবিক নয়। প্রতিটা সফরে বাংলাদেশ যায় ‘নিউজিল্যান্ডকে হারাইয়াই দেখাইব’ হুংকার দিয়ে, সফরের শেষ হয় ‘ব্যর্থতা হইতে শিক্ষা লইব’ প্রতিশ্রুতিতে। নিউজিল্যান্ড সফর প্রতিবার ‘শিক্ষাসফর’ হয়ে থাকে।

এবারও তা-ই হলো। তবে আজ শেষ টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ যেভাবে হেরেছে, তারপর কোনো প্রতিশ্রুতি, শিক্ষা নেওয়ার প্রতিজ্ঞারও হয়তো জায়গা থাকে না। একটুর জন্য যে তুরস্কের মতো দলের রেকর্ড ভেঙে দিতে বসেছিল বাংলাদেশ!

বিজ্ঞাপন
default-image

তুরস্কের আবার কোন রেকর্ড—চোখেমুখে প্রশ্নটা নিয়ে ভ্রু কুঁচকে তাকানোর আগে নিশ্চিত করা যাক তুরস্ক দেশটা ক্রিকেট খেলে। ক্রিকেট মাত্র ১০-১২টি দেশের খেলা বলে ক্রিকেটের ‘কূপমণ্ডূক’ হয়ে থাকা নিয়ে যাঁরা হাসি-তামাশা করেন, সেই নিন্দুকদের মুখে ছাই! ক্রিকেটকে যে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে দিচ্ছে আইসিসি, তার জলজ্যান্ত প্রমাণ তুরস্কেরও ক্রিকেট খেলা। বেশ কিছু রেকর্ডেও ‘ঠাঁই’ করে নিয়েছে!

টি-টোয়েন্টিতে সবচেয়ে কম রানের ইনিংসের রেকর্ডে দেখুন, সবচেয়ে কম রানের তিনটি দলীয় ইনিংসেই তুরস্কের ‘জয়জয়কার’। তা-ও ইনিংস তিনটি তারা খেলেছে টানা তিন দিনে! একই মাঠে, একই টুর্নামেন্টে। ২০১৯ সালের ২৯ আগস্ট রোমানিয়ার ইফলভ কাউন্টি স্টেডিয়ামে কন্টিনেন্টাল কাপের ম্যাচে লুক্সেমবার্গের বিপক্ষে তুরস্ক করল ২৮ রান। সেটিকেও ‘যথেষ্ট’ মনে না হওয়ায় পরের দিন রেকর্ডটা নিজেরাই আবার ভেঙেছে তুর্কিরা, চেক প্রজাতন্ত্রের বিপক্ষে করেছে ২১ রান। তার পরের দিন আগের দুই দিনের মতো অত ‘রেকর্ডপানে দুর্দমনীয়’ ছিল না তুরস্ক। ৩১ আগস্টের ম্যাচটাতে অস্ট্রিয়ার বিপক্ষে সেদিন ৩২ রানে থেমেছে তুরস্ক, টি-টোয়েন্টিতে যা তৃতীয় সর্বনিম্ন ইনিংস।

default-image

কিন্তু শুধু একদিকের রেকর্ডে নাম লেখালেই তো হবে না! তুরস্ক সম্ভবত ‘পরিকল্পনা’ করেই ঠিক করেছে, রেকর্ডে নাম লিখিয়েই বিশ্বকে তারা জানিয়ে দেবে, তারাও ক্রিকেট খেলে! অভীষ্ট লক্ষ্য পূরণে সবচেয়ে বেশি রান দেওয়ার রেকর্ডেও চলে গেছে তারা। ৩০ আগস্ট চেক প্রজাতন্ত্রের বিপক্ষে নিজেরা সর্বনিম্ন ইনিংসের রেকর্ড গড়ার দিনেই প্রথম ইনিংসে চেক প্রজাতন্ত্রকে ২৭৮ রান করতে দিয়েছিল তুরস্ক। যদিও বেরসিক আয়ারল্যান্ডকে পেছনে ফেলা হয়নি। তুরস্কের বিপক্ষে চেক প্রজাতন্ত্র ২৭৮ রান করেছিল ৪ উইকেটে, কিন্তু সে বছরেরই ফেব্রুয়ারিতে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে আফগানিস্তানও ২৭৮ রান করে রেখেছিল ৩ উইকেটে!

ধান ভানতে শিবের গীত মনে হচ্ছে? কোথায় বাংলাদেশের ম্যাচ হলো, তার মধ্যে তুরস্কের ক্রিকেট খেলার প্রমাণাদি ও রেকর্ডে জ্বলজ্বলে উপস্থিতি নিয়ে টানাটানি। বলতে পারেন, বাংলাদেশ দল আজ কী ‘মহিমান্বিত’ কীর্তি গড়েছে, সেটির ধারণা দিতেই তুরস্কের কীর্তি বয়ান করা!

বাংলাদেশ আজ প্রায় অসম্ভবই সম্ভব করেছে। দশ ওভারের মধ্যে অলআউট হওয়া তো চাট্টিখানি কথা নয়! এখন পর্যন্ত আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে এমন কীর্তি আছে মাত্র তিনটি। ইনিংসে সবচেয়ে কম রান করার তুরস্কের যে তিনটি কীর্তি আছে, তার মধ্যে ২১ আর ৩২ রান করার ম্যাচ দুটিতে তারা অলআউট হয়েছে ১০ ওভারের মধ্যে। ২০১৯ সালের ৩০ আগস্ট চেক প্রজাতন্ত্রের কাছে ২১ রানে অলআউট হয়েছে ৮.৩ ওভারে, তার পরের দিন অস্ট্রিয়ার কাছে অলআউট হয়েছে ৮.৫ ওভারে।

বিজ্ঞাপন
default-image

আজ নিউজিল্যান্ডের কাছে ৯.৩ ওভারে অলআউট হয়ে বাংলাদেশ দল আজ নিশ্চিত করেছে, তুরস্ককে আর একা থাকার কষ্ট সইতে হচ্ছে না। সহমর্মিতা একেই বলে! বিশ্বজুড়ে স্বার্থপরতা, অন্যকে পেছনে ফেলে নিজে এগিয়ে যাওয়ার প্রতিকূলতার মধ্যে এমন সহমর্মিতার উদাহরণ হৃদয়ে দোলা না দিয়ে পারে না!

তবে একদিকে বাংলাদেশ দল ‘নেতৃত্বগুণে’রও প্রমাণ রেখেছে। তুরস্ককে রেকর্ড থেকে আগলে রেখে নিজেরা সামনে চলে এসেছে। ম্যাচ ১০ ওভারের না ২০ ওভারের, সেটি বিবেচনায় খেলার মানসিকতা, কীভাবে খেলবেন সেই ভাবনা—ক্রিকেটে যেটি অ্যাপ্রোচ বলে পরিচিত, সেসবে পার্থক্য আসেই। তুরস্ক সেটি হয়তো ঠিকভাবে ধরতে পারেনি। তারা যে দুবার দশ ওভারের মধ্যে অলআউট হয়েছে, দুটি ম্যাচই তো তারা নেমেছে ‘২০ ওভার খেলতে হবে’ ভাবনা মাথায় নিয়ে। বাংলাদেশ দল ওসবের ধার ধারেনি।

অকল্যান্ডে আজ বৃষ্টির কারণে ম্যাচটা ১০ ওভারের হয়ে গেছে। এর মধ্যে অলআউট হয়ে বাংলাদেশ দল নিশ্চিত করল, আন্তর্জাতিক ‘টি-টেন’ ক্রিকেটে ১০ ওভারে অলআউট হওয়ার কীর্তি প্রথমবার বাংলাদেশ দলের হাত ধরেই দেখবে বিশ্ব।
তুরস্ক রেকর্ডে নাম লেখাতে পারে, বাংলাদেশও কম যায় না!

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন