default-image

দাদা মনসুর আলী খান পতৌদি ছিলেন ভারতের ক্রিকেট দলের অন্যতম সফল অধিনায়ক। যদিও তৈমুর আলী খানের বাবা সাইফ আলী খান অভিনয়কেই পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছেন। সাইফ তনয় তৈমুর ভবিষ্যতে কী হবেন সেটা না হয় সময়ের হাতেই তোলা রইল। কিন্তু তৈমুরের রক্তে তো ক্রিকেটই আছে। এরই মধ্যে ক্রিকেট ব্যাট হাতে তৈমুরের একটা ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়েছে।

বিজ্ঞাপন

আকারে বেশ বড়সড়ো একটা ব্যাট নিয়ে শট খেলছে খুদে ব্যাটসম্যান তৈমুর। আর ছবিটা নিজের ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে তৈমুরের মা কারিনা কাপুর মজা করে লিখেছেন, ‘কোনো আইপিএলের দলে কি জায়গা হবে? আমিও কিন্তু খেলতে পারি।’

কারিনা এখন পুরো পরিবার নিয়ে আছেন পতৌদি প্রাসাদে। সেখানে বাড়ির মাঠে প্রতিদিন ব্যাট হাতে নামছেন তৈমুর। ছবিতে দেখা যাচ্ছে তৈমুরের আশপাশে ফিল্ডিংয়ের জন্য অনেকেই দাঁড়িয়ে আছে। মহা উৎসাহ নিয়ে ব্যাটিং করছে চার বছর বয়সী তৈমুর। ছবিটা পোস্ট করার পর প্রচুর মন্তব্য এসেছে, যেখানে অনেকেই লিখেছেন দাদার মতোই যেন ক্রিকেট খেলে তৈমুর।

default-image

এরই মধ্যে আইপিএলের দল দিল্লি ক্যাপিটালসেরও নজরে এসেছে কারিনার এই পোস্টের ছবি। ক্লাব কর্তৃপক্ষ লিখেছে, তারাও তৈমুরকে নিজেদের শহরের ‘নবাব’ বলেই মনে করে। হাজার হলেও পতৌদি যে দিল্লিরই অংশ। কারিনার ইনস্টাগ্রাম পোস্টে তারা মন্তব্য করেছে, ‘আমাদের হয়ে তাকে গর্জাতে দেখলে আনন্দিত হব। একজন সত্যিকারের নবাব সব সময় তার রাজধানীর অংশ।’ গর্জন করার প্রসঙ্গটা কেন টানা হয়েছে সেটা তো বোঝাই যাচ্ছে, হাজার হলেও তৈমুরের দাদাকে যে ডাকা হতো ‘টাইগার পতৌদি’ নামে।

বছর দু-এক আগে অবশ্য কারিনা এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ‘তৈমুর যদি দাদার মতো ক্রিকেটার হয় তাহলে তিনি খুব খুশি হবেন।’ তৈমুরের ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহ দেখে তাই তো কারিনার খুশির সীমা নেই।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0