default-image
ক্রিকেটে ফিরতে উন্মুখ দক্ষিণ আফ্রিকা। এরই মধ্যে তারা ছেলে ও মেয়েদের জাতীয় দলকে অনুশীলনে নামানোর প্রস্তুতি সেরে ফেলেছে। তবে ফেরার আগেই ধাক্কা খেল দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট

করোনাভাইরাস মহামারি বিরতির পর নতুন স্বাভাবিকতায় ধীরে ধীরে মানিয়ে নিচ্ছে ক্রীড়াঙ্গন। লম্বা বিরতির পর প্রথমে মাঠে ফেরে ইউরোপের বড় ফুটবল লিগ। স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিয়ে খেলা হচ্ছে দর্শকশূন্য মাঠে। জৈব-সুরক্ষিত পরিবেশে দর্শকহীন মাঠে ফিরেছে ক্রিকেটও।

ক্রিকেট মাঠে ফিরেছে ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ দিয়ে। ইংল্যান্ডের মাটিতে সেই সিরিজের শেষ টেস্টটি চলছে এখন। পাকিস্তান দলও এই মুহূর্তে ইংল্যান্ডে আছে। আগস্ট ও সেপ্টেম্বরে সেখানে তিনটি করে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি খেলবে তারা। আসলে মাঠে ফেরার জন্য উন্মুখ হয়ে আছে অন্য ক্রিকেট দলগুলোও। আগামী মাসে মাঠে গড়াবে আইপিএল। অস্ট্রেলিয়া দলের ইংল্যান্ড সফরে যাওয়ার কথা। ভারত ডিসেম্বরে যাবে অস্ট্রেলিয়া সফরে।

ক্রিকেটে ফিরতে উন্মুখ দক্ষিণ আফ্রিকাও। এরই মধ্যে তারা ছেলে ও মেয়েদের জাতীয় দলকে অনুশীলনে নামানোর প্রস্তুতি সেরে ফেলেছে। তবে ফেরার আগেই ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা একটা ধাক্কা খেল। দেশটির মেয়েদের জাতীয় দল ও কোচিং স্টাফ মিলিয়ে মোট তিন সদস্যের করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। ইংল্যান্ড সফর সামনে রেখে মেয়েদের একটি অনুশীলন ক্যাম্প আয়োজন করার কথা বলেছে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা (সিএসএ)। এর আগে দলের সবার করোনা পরীক্ষা করানো হয়। তাতেই দুজন ক্রিকেটারসহ কোচিং দলের একজনের করোনা ধরা পড়েছে।

প্রিটোরিয়াতে অনুশীলন ক্যাম্পটি শুরু হওয়ার কথা আগামী পরশু। এর আগে তিনজনের করোনায় আক্রান্ত হওয়া নিয়ে এক বিবৃতিতে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা জানায়, ‌‌‘আমরা নিশ্চিত করেছি তিনজনের করোনা ধরা পড়েছে। যাঁদের করোনা ধরা পড়েছে তাঁরা এখন ১০ দিনের জন্য আইসোলেশনে চলে যাবেন এবং অনুশীলনে অংশ নেবেন না।’

করোনায় আক্রান্ত তিনজনের শরীরে তেমন কোনো লক্ষ্মণই ছিল না বলেও জানিয়েছে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা। সব মিলিয়ে ৩৪ জনের করোনা পরীক্ষা করানো হয়েছে। আগামী ১৬ আগস্ট দ্বিতীয় ধাপের অনুশীলন শুরু করবে দক্ষিণ আফ্রিকার মেয়েরা। এর আগেও একবার সবার করোনা পরীক্ষা করানো হবে। আর ইংল্যান্ডের উদ্দেশে রওনা হয়ে যাওয়ার আগে বিধি অনুযায়ী আরও একবার পরীক্ষা তো করাতেই হবে। ইংল্যান্ডে সিরিজটি হওয়ার কথা জৈব-সুরক্ষিত পরিবেশে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন