default-image
>‘৮৩’তে কপিল দেবের স্ত্রী রোমি দেবের চরিত্রে থাকবে দীপিকা। আর এ সুবাদে তাঁর সবচেয়ে প্রিয় ক্রিকেটারের নামও জেনে গেল সবাই।

ক্রিকেট আর বলিউড বরাবরই হাতে হাত রেখে চলেছে। বর্তমান ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি তো আনুশকা শর্মার সঙ্গে পরিণয়কে পরিণতিই দিয়েছেন। দীপিকা পাড়ুকোন বাস্তবে না হলেও বড় পর্দায় আরেক অধিনায়কের স্ত্রী হতে যাচ্ছেন শিগগির। ভারতের প্রথম বিশ্বকাপ নিয়ে নির্মিতব্য চলচ্চিত্র ‘৮৩’তে কপিল দেবের স্ত্রী রোমি দেবের চরিত্রে থাকবে দীপিকা। আর এ সুবাদে তাঁর সবচেয়ে প্রিয় ক্রিকেটারের নামও জেনে গেল সবাই।

পারিবারিকভাবেই খেলাধুলার সঙ্গে জড়িত দীপিকা। নিজে একসময় ব্যাডমিন্টন খেলতেন। তাঁর বাবা প্রকাশ পাড়ুকোন তো ভারতের সর্বকালের অন্যতম সেরা ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড়দের একজন। ক্রিকেট খেলাটাও নিয়মিতই অনুসরণ করেন। জাতীয় দল নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিয়মিত উচ্ছ্বাস প্রকাশ করতে দেখা যায় তাঁকে। স্টার স্পোর্টসে ক্রিকেট নিয়ে নিজের ভালোবাসার কথা জানাতে গিয়েই প্রিয় খেলোয়াড়ের নাম জানালেন দীপিকা, ‘দ্রাবিড়কে আমি সব সময় শ্রদ্ধা করতাম। সব সময় তাঁর কাছ থেকে অনুপ্রেরণা নিতাম। আর তিনি বেঙ্গালুরুর খেলোয়াড়।’ শুধু এ কারণেই যে তাঁকে পছন্দ করেন দীপিকা তা নয়। দ্রাবিড়কে অন্য অ্যাথলেটদের অনুপ্রেরণার কারণ ব্যাখ্যা করেছেন দীপিকা, ‘মাঝে মাঝে মনে হয়, শরীর মনের সঙ্গে তাল মেলাতে পারছে না। তখন মনই সব নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় আর এর যত্ন নেওয়া তাই দরকার। তরুণ অ্যাথলেটরাও একদিন এটা বুঝতে পারে। তবে ওদের জানা উচিত দৃঢ়তা, সাহস, একাগ্রতা এবং মানসিকতাও খুব গুরুত্বপূর্ণ। ওদের এতে মনোযোগ দেওয়া উচিত।’

‘৮৩’ চলচ্চিত্রের সুবাদে ভারতের ক্রিকেটের একটা গুরুত্বপূর্ণ ইতিহাসের অংশ হচ্ছেন দীপিকা। আর এ চলচ্চিত্রের মূল চরিত্র কপিল দেবের চরিত্রে অভিনয় করছেন দীপিকার স্বামী রনবীর সিং। ক্রিকেট প্রেম যে এ দম্পতির রক্তে মিশে আছে সেটাও জানিয়ে দিয়েছেন দীপিকা, ‘আমি আর রনবীর এক সঙ্গে খেলা দেখি। সে যে অনেক বড় ফুটবল ভক্ত সেটা সবাই জানে, তবে সে অনেক বড় ক্রিকেট ভক্তও। আমরা সব ম্যাচ হয়তো দেখতে পারি না। তবে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচগুলো একসঙ্গে দেখার ব্যবস্থা করি। বন্ধ ও পরিবারের লোকজনকে ডেকে একটা উৎসবের মতো করি, পুরো দেশ যেমন করে।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন