বিজ্ঞাপন

পূর্ণ শক্তির দল নিয়ে এসেও আগের দুই ম্যাচে জয় দূরে থাক, সেভাবে লড়াই করতেই পারেনি পাকিস্তান। কাল অধিনায়ক বাবর আজমের ১৩৯ বলে ১৫৮ রানের ইনিংসে ভর করে ৯ উইকেটে ৩৩১ রান তুলেছিল পাকিস্তান।

শাহিন শাহ আফ্রিদি, শাদাব খান ও হাসান আলীদের নিয়ে গড়া বোলিং আক্রমণ নিয়েও এ পুঁজি রক্ষা করতে পারেনি পাকিস্তান। জেমস ভিন্সের ৯৫ বলে ১০২ রানের ইনিংসে ১২ বল হাতে রেখে ৩ উইকেটে জেতে ইংল্যান্ড। ক্যাচ ছাড়া ও বাজে ফিল্ডিংও বড় ভূমিকা রেখেছে পাকিস্তানের এ হারে।

default-image

২৩.৩ ওভারে ১৬৫ রানের মধ্যে ৫ উইকেট হারিয়েছিল ইংল্যান্ড। এখান থেকে ষষ্ঠ উইকেটে ১১৬ বলে ১২৯ রানের জুটি গড়েন ভিন্স ও লুইস গ্রেগরি। ৬৯ বলে ৭৭ রান করেন গ্রেগরি। তাঁদের এ জুটিই মূলত জয়ের পথ দেখায় ইংল্যান্ডকে। পাকিস্তানের হয়ে হারিস রউফ ৬৫ রানে ৪ উইকেট নিলেও হার এড়াতে পারেননি।

এর আগে টসে হেরে আগে ব্যাটিংয়ে নেমেছিল পাকিস্তান। ওয়ানডেতে পাকিস্তানের প্রথম অধিনায়ক হিসেবে এক ইনিংসে ন্যূনতম দেড় শ রান করার রেকর্ড গড়েন বাবর। এর আগের রেকর্ডটি শোয়েব মালিকের, ২০০৮ সালে ভারতের বিপক্ষে ১২৫ রানের ইনিংস।

default-image

এ ছাড়া ওয়ানডেতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম অধিনায়ক হিসেবে এক ইনিংসে ন্যূনতম দেড় শ রানের ইনিংস খেললেন বাবর। মাত্র ৮১ ইনিংসে ১৪তম ওয়ানডে সেঞ্চুরির দেখা পেলেন পাকিস্তান অধিনায়ক। ছেলে ও মেয়েদের ওয়ানডে ক্রিকেট মিলিয়ে এটি সবচেয়ে কম ইনিংসে দ্রুততম ১৪ সেঞ্চুরির নজির। এর আগে রেকর্ডটি অস্ট্রেলিয়া নারী দলের অধিনায়ক মেগ ল্যানিংয়ের (৮২ ইনিংসে ১৪ সেঞ্চুরি)। ছেলেদের মধ্যে এর আগে হাশিম আমলা ৮৪ ইনিংসে ১৪ সেঞ্চুরি করেছিলেন।

ওয়ানডে সিরিজে ধবলধোলাই হওয়ার পর পাকিস্তানের সামনে এখন তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের চ্যালেঞ্জ। নটিংহামে পরশু গড়াবে প্রথম টি-টোয়েন্টি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন