দ্রুততম সেঞ্চুরিতে তামিমকে ছাড়িয়ে হাসানুজ্জামান

দ্রুততম সেঞ্চুরিতে তামিমকে ছাড়িয়ে গেলেন হাসানুজ্জামান।ছবি: প্রথম আলো

হাসানুজ্জামান তখন ৯৯ রানে অপরাজিত। ওল্ড ডিওএইচএসের আনিসুল ইসলাম অফ স্টাম্পের বাইরে দিলেন এক ফুলটস। পারটেক্সের ওপেনার হাসানুজ্জামান বলটা কাভারে ঠেলে দিয়েই পৌঁছে যান তিন অঙ্কে। ভাসলেন সেঞ্চুরির উদযাপনে।

কিন্তু হাসানুজ্জামান কি জানতেন এই সেঞ্চুরি দিয়েই টি–টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের দ্রুততম সেঞ্চুরির তালিকায় পেছনে ফেলেছেন তামিম ইকবালকে? বিকেএসপিতে আজ প্রিমিয়ার ক্রিকেটের রেলিগেশন লিগে পারটেক্সের হয়ে ওল্ড ডিওএইচএসের বিপক্ষে মাত্র ৪৮ বলে সেঞ্চুরি করে হাসানুজ্জামানই এখন টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের দ্বিতীয় দ্রুততম সেঞ্চুরিয়ান।

দ্রুততম সেঞ্চুরিটা এখনো অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপজয়ী বাংলাদেশ দলের সদস্য পারভেজ হোসেনের দখলে। গত বছর বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে ফরচুন বরিশালের হয়ে মাত্র ৪২ বলে সেঞ্চুরি করেছিলেন পারভেজ। তার আগ পর্যন্ত টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ড ছিল তামিমের।

২০১৯ সালে বিপিএল ফাইনালে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের হয়ে তামিম ৬১ বলে খেলেছিলেন ১৪১ রানের ইনিংস। সেঞ্চুরি পূর্ণ করেছিলেন ৫০ বলে। এবার দ্রুততম সেঞ্চুরিতে তামিমকে তিনে নামিয়ে আনলেন ৩০ বছর বয়সী হাসানুজ্জামান।

সেঞ্চুরির পথে ৩৯ বলেই ৮৯-এ পৌঁছে যান হাসানুজ্জামান। সুযোগ ছিল পারভেজের রেকর্ডও ভেঙে দেওয়ার। কিন্তু পরের ১১টি রান নিতে তিনি খেলে ফেলেন আরও ৯ বল। শেষ পর্যন্ত ৫২ বলে ১১ চার আর ৭ ছক্কায় ১০৫ রান করে থেমেছেন তিনি। এর আগে ফিফটি করেছিলেন মাত্র ২৫ বলে।

দুর্ভাগ্য হাসানুজ্জামানের, এমন মারকাটারি ইনিংস খেলেও জেতাতে পারেননি দলকে। ওল্ড ডিওএইচএসের করা ১৯৯ রানের জবাবে পারটেক্স ২০ ওভারে ৮ উইকেটে করেছে ১৭৬ রান।

বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে টি-টোয়েন্টিতে সেঞ্চুরি আছে শাহরিয়ার নাফীস, মোহাম্মদ আশরাফুল, তামিম ইকবাল, এনামুল হক, সাব্বির রহমান, নাজমুল হোসেন, পারভেজ হোসেন, মোহাম্মদ নাঈম ও মিজানুর রহমানের। এবারের প্রিমিয়ার লিগের প্রথম সেঞ্চুরিটি এসেছে ব্রাদার্স ইউনিয়নের ওপেনার মিজানুর ব্যাট থেকে। আজ মিজানুরের পাশে নাম লেখালেন হাসানুজ্জামান।